অপুর হাতে ডিভোর্স লেটার

অবশেষে অপু বিশ্বাসের হাতে এসে পৌঁছল শাকিব খান প্রেরিত ডিভোর্স লেটার। গত পরশু রাত প্রায় ৯টার দিকে অপু ডিভোর্স লেটারটি হাতে পান বলে জানান। তবে ডিভোর্স লেটারটি তিনি গতকাল দুপুরে এই প্রতিবেদকের সঙ্গে কথা বলা পর্যন্ত খুলে দেখেননি বলেও জানান। কেন তিনি তা খুলে দেখলেন না?

এ প্রশ্নের জবাবে অপু ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, শাকিব এমন একটি ন্যক্কারজনক কাজ করবে স্বপ্নেও ভাবিনি। স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে সমস্যা হতেই পারে। তাই বলে মিথ্যা অপবাদ দিয়ে সে আমাকে ডিভোর্স লেটার পাঠাবে তা ভাবতেও আমার ঘৃণা হচ্ছে। এই ঘৃণা থেকেই ডিভোর্স লেটারটি খুলে দেখার মানসিকতা আমি হারিয়ে ফেলেছি। এটি নিয়ে আমি আমার আইনজীবীর কাছে যাব। আইনিভাবে যা হওয়ার তাই হবে। কারণ আমি আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। আইনজীবীর সঙ্গে কথা বলার পর সংবাদ সম্মেলন করতে পারেন বলেও জানান তিনি।

এদিকে বর্তমানে হায়দরাবাদে ‘নোলক’ ছবির শুটিংয়ে থাকা শাকিব খান বলেন, আমি কেন তাকে ডিভোর্স দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছি দেশের মানুষের কাছে তা এখন পরিষ্কার। আমি যদি তার সঙ্গে স্বেচ্ছাচারিতা করতাম বা খেয়াল-খুশি মতো তাকে ডিভোর্স দিতে চাইতাম তাহলে অনেক আগেই তা করতাম। চলতি বছরের ১০ এপ্রিল একটি টিভি চ্যানেলে গিয়ে আমার বিরুদ্ধে নেতিবাচক কথা বলা সত্ত্বেও আমি তাকে ক্ষমা করে দিয়েছি। তার চাল-চলনে আমি এতটাই অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছি যে, বিশেষ করে গত মাসে আমার শিশুপুত্র জয়কে ঘরেতালাবদ্ধ করে কাজের লোকের কাছে রেখে আমাকে না জানিয়ে হঠাৎ করে দেশের বাইরে চলে যাওয়ায় আমি জয়ের নিরাপত্তা নিয়ে উৎকণ্ঠিত হয়ে পড়ি এবং বাধ্য হয়েই ডিভোর্সের পথ বেছে নেই।

শাকিব বলেন, অপুর বিষয়ে যা করার তা করে ফেলেছি। এখন আর এ বিষয় নিয়ে কোনো কথা বলতে চাই না। আমার আইনজীবীই যা বলার বলবে। আমার হাতে এখন প্রচুর ছবির কাজ। অভিনয় নিয়েই ব্যস্ত থাকতে চাই। দেশি চলচ্চিত্র শিল্পের উন্নয়নে ভালো ভালো কাজ করে যেতে চাই।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Shares