আমিরাতে টি-টোয়েন্টি খেলার অনুমতি চেয়েছেন সাকিব

সাকিব আল হাসান কবে মাঠে ফিরবেন, এই অপেক্ষার প্রহর গুণছে বাংলাদেশের ক্রিকেট। তবে আঙুলের উন্নতি দেখে সাকিব নিজে একটি সময় ভেবে রেখেছেন। সুস্থ হয়ে উঠলে খেলতে চান ডিসেম্বরের শেষ দিকে সংযুক্ত আরব আমিরাতে একটি টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্টে। অনাপত্তিপত্র চেয়ে বিসিবির কাছে আবেদনও করেছেন মাঠের বাইরে থাকা এই অলরাউন্ডার।

আগামী ২৩ ডিসেম্বর থেকে ১ জানুয়ারি দুবাই, শারজাহ ও আবু ধাবিতে হবে ইউএই টি২০এক্স নামের এই টুর্নামেন্ট। টুর্নামেন্টের আগে সময় আছে আর দুই মাস। অস্ট্রেলিয়ায় চিকিৎসা শেষে গত ১৪ অক্টোবর দেশে ফিরে সাকিব বলেছিলেন, সেরে উঠতে তিন মাস বা আরও বেশি সময় লেগে যেতে পারে। আবার, আঙুলে শক্তি ফিরলে আগামী মাসেও খেলায় ফিরতে পারেন।

কোন ভাবনা থেকে এই টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্টে খেলার অনুমতি চেয়েছেন সাকিব, সেটি জানালেন ।

“আমি কিন্তু বলিনি যে খেলবই। সেটা বলতেও পারি না। আগেই বলেছি, আঙুল ঠিক হলে আগামী মাসে খেলতে পারি। ঠিক না হলে যতদিন লাগে, ততদিন পরেই ফিরতে হবে। আমি তো সুস্থ হলেই খেলব, সুস্থ না হলে কিভাবে খেলব?”

“আমি পেশাদার ক্রিকেটার। সুস্থ থাকলে একটা টুর্নামেন্টে খেলতে চাইতেই পারি। আঙুলের অবস্থা ভালোর দিকে। অনুমতি চেয়েছি স্রেফ অপশন রাখতে। ততদিনে সুস্থ হয়ে উঠলে এবং যদি সুযোগ থাকে, তাহলে যেন খেলতে পারি। প্লেয়ার্স ড্রাফটে নাম দিতে হলে বোর্ডের এনওসি (অনাপত্তিপত্র) লাগবে এখন, এজন্যই আবেদন করেছি। বোর্ডের কাছে মেইলে আমি সব ব্যাখ্যা করেই বলেছি।”

বিসিবি পরিচালক ও মিডিয়া কমিটির চেয়ারম্যান জালাল ইউনুস জানান, সাকিবের ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে দু-তিন দিনের মধ্যেই। তবে বোর্ডের নানা সূত্র থেকে যা জানা যাচ্ছে, সাকিবকে অনুমতি দেওয়ার সম্ভাবনা সামান্যই। কদিন আগে বিসিবি প্রধান নাজমুল হাসান জানিয়ে দিয়েছেন, বিশ্বকাপকে সামনে রেখে সাকিব, তামিম ইকবালসহ সব ক্রিকেটারকে নিয়ে কোনো ঝুঁকি নিতে চায় না বোর্ড।

Leave a Reply