একতরফা নির্বাচনের জন্য তফসিল ঘোষণা: ফখরুল

নির্বাচন কমিশন এক তরফা নির্বাচন করার জন্য তফসিল ঘোষণা করেছে যা জনগণের আশা আকাঙ্ক্ষার প্রতিফল হয়নি বলে জানিয়েছেন বিএনপির মির্জা ফখরুল। একাদশ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করার পরে এক তাৎক্ষনিক প্রতিক্রিয়ায় তিনি একথা বলেন।

বৃহস্পতিবার (৮ নভেম্বর) সন্ধ্যা ৭টায় ২০ দলীয় গুলশানের বিএনপির কার্যালয়ে জোটের শীর্ষ নেতাদের জরুরি বৈঠক শেষে সংবাদিকদের এ কথা বলেন বিএনপি মহাসচিব।

তিনি উপস্থিত সাংবাদিকদের বলেন, আমরা যা বলব আগামীকাল রাজশাহীতে যে সমাবেশ হবে সেখানেই বলব। বৈঠকে খালেদা জিয়ার মুক্তি, তফসিল ঘোষণার পরবর্তী আন্দোলন কর্মসূচির সার্বিক বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়।

বিএনপি’র মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের সভাপতিত্বে বৈঠকে আরও উপস্থিত আছেন- বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ও ২০ দলের সমন্বয়ক নজরুল ইসলাম খান, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমেদ। এলডিপির সভাপতি কর্নেল অলি আহমেদ, কল্যাণ পার্টির মেজর জেনারেল (অব.) ইবরাহিম, বিজেপির ব্যারিস্টার আন্দালিব রহমান পার্থ, এলডিপির ড. রেদওয়ান আহমেদ, জামায়াতের মাওলানা আব্দুল হালিম, এনপিপির চেয়ারম্যান ড. ফরিদুজ্জামান ফরহাদ, জাপার মোস্তফা জামাল হায়দার, জাগপার ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ব্যারেস্টার তাসমিয়া প্রধান, লেবার পার্টির ডা. মোস্তাফিজুর রহমান ইরান, ইসলামী ঐক্যজোটের অ্যাডভোকেট আব্দুর রকিব, ন্যাপের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান শাওন সাদেকী প্রমুখ।
বৈঠক শুরু কিছুক্ষণ আগে পৌণে সাতটায় নিজ গাড়িতে কার্যালয়ের ভেতরে প্রবেশ করেন লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টির (এলডিপি) সভাপতি কর্নেল অলি আহমদ। গত ৮ ফেব্রুয়ারি বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে কারাগারে নেওয়ার পর গতকাল পর্যন্ত বিএনপির গুলশান কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত কোনো বৈঠকে অংশ নেননি তিনি।

এর আগে সন্ধ্যা ৭টায় তফসিল ঘোষণা করতে জাতির উদ্দেশে দেয়া ভাষণে এ তারিখ ঘোষণা করেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নুরুল হুদা। তার ভাষণ বাংলাদেশ টেলিভশন (বিটিভি) এবং বাংলাদেশ বেতারে প্রচার করা হয়। এছাড়া বিটিভি থেকে এ ভাষণ সম্প্রচার করে বেসরকারি টেলিভিশন।
তফসিল অনুযায়ী মনোয়নপত্র দাখিলের শেষ তারিখ ১৯ নভেম্বর। মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাই ২২ নভেম্বর। মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার ২৯ নভেম্বর।
উল্লেখ্য, সংবিধান অনুযায়ী ৩১ অক্টোবর থেকে নির্বাচনের ক্ষণ গণনা শুরু হয়েছে। আগামী ২৮ জানুয়ারির মধ্যে জাতীয় নির্বাচন করার বাধ্যবাধকতা রয়েছে।