এসিডদগ্ধ নারীর চরিত্রে দীপিকা

বলিউড অভিনেত্রী দীপিকা পাড়ুকোন। পদ্মাবত সিনেমার সাফল্যের পর মেঘনা গুলজার পরিচালিত একটি সিনেমায় অভিনয় করবেন তিনি। অভিনয়ের পাশাপাশি সিনেমাটি প্রযোজনাও করবেন দীপিকা।

জানা গেছে, সিনেমাটিতে এসিড সন্ত্রাসের শিকার লক্ষ্মী আগরওয়ালের চরিত্রে দেখা যাবে দীপিকাকে। সিনেমা প্রসঙ্গে ভারতীয় একটি সংবাদমাধ্যমে দীপিকা বলেন, ‘যখন সিনেমাটির গল্প শুনি, তখন এটি আমার মনকে ভীষণ নাড়া দিয়েছিল। শুধু হিংস্রতা নয় বরং সাহস, আশা ও বিজয়ের গল্প এটি। এই গল্প আমার ওপর এতটাই প্রভাব ফেলেছে যে, ব্যক্তিগত ও সৃজনশীলভাবে আমার কিছু করা দরকার বলে মনে হয়েছে। তাই আমি প্রযোজক হওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছি।’

লক্ষ্মী চরিত্রে দীপিকাকে বেছে নেওয়ার কারণ হিসেবে মেঘনা গুলজার বলেন, ‘আমার কাছে মনে হয়েছে একমাত্র দীপিকাই এই চরিত্র ও গল্প ঠিকভাবে ফুটিয়ে তুলতে পারবে। এছাড়া আমি লক্ষ্মীকে যেভাবে ভেবেছি শারীরিকভাবে দীপিকার সেই মিলও রয়েছে। তার কাছে কৃতজ্ঞ যে, তিনি খুব স্বতস্ফূর্তভাবে সিনেমাটি করতে রাজি হয়েছেন। যখন তার মতো সুন্দর একটি মুখ এসিডদগ্ধ অবস্থায় তুলে ধরা হবে তখন এই হিংস্রতা ও এর ক্ষতির বিষয়টি সঠিকভাবে ফুটিয়ে তোলা সম্ভব হবে।’

সিনেমাটি নিয়ে এর আগে এক সাক্ষাৎকারে এই নির্মাতা বলেন, ‘লক্ষ্মীকে সিনেমার পর্দায় তুলে ধরার মাধ্যমে সমাজে এসিড সংক্রান্ত হিংস্রতার বিষয়গুলোতে নজর দেয়ার চেষ্টা করছি। এ কারণেই মনে হয়েছে এই গল্পটি খুবই প্রাসঙ্গিক। পরিবর্তনের জন্য সবার আগে সচেতন হওয়া জরুরি।’

মাত্র ১৫ বছর বয়সে এসিড সন্ত্রাসের শিকার হন লক্ষ্মী আগরওয়াল। ২০০৫ সালে দিল্লির একটি বাসস্ট্যান্ডে দাঁড়িয়ে থাকা অবস্থায় তাকে এসিড ছুড়ে দেয় এক ব্যক্তি, যে লক্ষ্মীকে একতরফা ভালোবাসত। বর্তমানে ভারতে এসিড সন্ত্রাস বন্ধে কাজ করছেন লক্ষ্মী। এছাড়া টিভি উপস্থাপিকা হিসেবেও দেখা যায় তাকে।

Leave a Reply