ওবামার প্রতি ক্ষুব্ধ হয়ে ইরানের সঙ্গে পরমাণু চুক্তি বাতিল ট্রাম্পের

সদ্য পদত্যাগকারী যুক্তরাষ্ট্রে নিযুক্ত ব্রিটিশ রাষ্ট্রদূত স্যার কিম ডারোচের ফাঁস হওয়া নতুন এক নথি অনুসারে, বারাক ওবামার প্রতি ক্ষুব্ধ হয়ে ইরান পরমাণু চুক্তি থেকে বেরিয়ে যান ডোনাল্ড ট্রাম্প।

ট্রাম্পের এটিকে ‘কূটনৈতিক অপরাধ’ বলে উল্লেখ করেছেন স্যার কিম। রোববার যুক্তরাজ্যের সংবাদপত্র ডেইলি মেইলে প্রকাশিত এক প্রতিবেদনের বরাত দিয়ে এই তথ্য জানিয়েছে বিবিসি।

যুক্তরাষ্ট্রের কাছে ২০১৮ সালে যুক্তরাজ্যের তখনকার পররাষ্ট্রমন্ত্রী দেশটিকে এই পরমাণু চুক্তিতে থাকার অনুরোধ করার পর নথিটি লেখা হয় বলে উল্লেখ করেছে সংবাদপত্রটি।

এই চুক্তির অধীনে ইরান পরমাণু কর্মসূচি সীমিত করতে রাজি হয়। এছাড়া ইরানের ওপর আরোপ করা অর্থনৈতিক নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয়ার বদলে আন্তর্জাতিক পর্যবেক্ষকদেরকে পরমাণু কর্মসূচি পর্যবেক্ষণের অনুমতি দেয় দেশটি।

কিন্তু প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প এটিকে যথেষ্ট মনে করেননি। জনসন যুক্তরাষ্ট্র থেকে যুক্তরাজ্যে ফেরার পর স্যার কিম লেখেন, ট্রাম্প ব্যক্তিগত কারণে এই পরমাণু চুক্তি থেকে বেরিয়ে যান। কারণ এতে চুক্তিবদ্ধ হন তার পূর্বসূরি ওবামা।

ব্রিটিশ রাষ্ট্রদূতের মতে, যুক্তরাষ্ট্র চুক্তিটি থেকে বেরিয়ে আসা নিয়ে দেশটির প্রেসিডেন্টের উপদেষ্টাদের মধ্যে মতভেদ সৃষ্টি হয় এবং এটি নিয়ে নির্দিষ্ট কোনো পরিকল্পনা করেনি হোয়াইট হাউস।

উল্লেখ্য, স্যার কিম গত বুধবার যুক্তরাষ্ট্রে নিযুক্ত ব্রিটিশ রাষ্ট্রদূতের পদ থেকে পদত্যাগ করেন। তিনি জানান, তার পক্ষে এই দায়িত্ব পালন করে যাওয়া সম্ভব নয়।