ওয়ালটনের ফুল ভিউ ডিসপ্লের নতুন স্মার্টফোন

সাশ্রয়ী মূল্যের নিউ জেনারেশন ১৮:৯ রেশিওর নতুন স্মার্টফোন এনেছে ওয়ালটন। যার মডেল ‘প্রিমো এইচ৭’। ৫.৫ ইঞ্চির এইচডি পর্দার ফোনটিতে ব্যবহৃত হয়েছে ফুল ভিউ আইপিএস ডিসপ্লে। রয়েছে ২.৫ডি কার্ভড গ্লাস।

ওয়ালটন সেল্যুলার ফোন ডিভিশন (মার্কেটিং) প্রধান আসিফুর রহমান খান জানান, সাধারণ স্মার্টফোনের ডিসপ্লের রেশিও থাকে ১৬:৯। এতে পর্দার ওপরে ও নিচে ফোনের ফ্রেম থাকে বড়। ফলে পর্দা আয়তনে ছোট হয়। কিন্তু ১৮:৯ রেশিওর ফুল ভিউ ডিসপ্লের স্মার্টফোনের পর্দার ওপরে ও নিচের ফ্রেম ছোট থাকে। ফলে পর্দা আয়তনে বড় হয়। এসব স্মার্টফোনে ইন্টারনেট ব্রাউজিং, গেম খেলা কিংবা ভিডিও দেখায় গ্রাহক পান অনন্য অভিজ্ঞতা। স্মার্টফোনটি দেখতেও দারুণ আকর্ষণীয় লাগে।

তিনি আরো জানান, এর আগে গত মাসে ‘প্রিমো জিএইচ৭’ নামের আরেকটি স্মার্টফোন আনে ওয়ালটন। যেটি দেশের বাজারে সবচেয়ে সাশ্রয়ী মূল্যের ফুল ভিউ ডিসপ্লের ফোন। মাত্র ৫ হাজার ৯৯৯ টাকা মূল্যের ফোনটি বাজারে আসার পর ব্যাপক ক্রেতাসমাদৃত হয়েছে। এরই ধারাবাহিকতায় ছাড়া হয়েছে ‘প্রিমো এইচ৭’ মডেলের স্মার্টফোনটি।

ওয়ালটন সূত্রে জানা যায়, ফিঙ্গার মাল্টি-টাচ সুবিধার নতুন ফোনটিতে ব্যবহৃত হয়েছে ১.৩ গিগাহার্জের কোয়াড কোর প্রসেসর। রয়েছে ১ গিগাবাইট ডিডিআর৩ র‌্যাম। প্রাণবন্ত ভিডিও ও গেমিং অভিজ্ঞতা দিতে গ্রাফিক্স হিসেবে ব্যবহৃত হয়েছে মালি-৪০০। প্রয়োজনীয় ফাইল সংরক্ষণে রয়েছে ৮ গিগাবাইট স্টোরেজ। যা মাইক্রো এসডি কার্ডের মাধ্যমে ১২৮ জিবি পর্যন্ত বাড়ানো যাবে।

ফোনটির পেছনে ব্যবহার করা হয়েছে এলইডি ফ্ল্যাশযুক্ত বিএসআই ৮ মেগাপিক্সেল অটো ফোকাস ক্যামেরা। আকর্ষণীয় সেলফির জন্য ফোনটির সামনে রয়েছে এলইডি ফ্ল্যাশযুক্ত বিএসআই ৫ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা। ক্যামেরার বিশেষ ফিচারের মধ্যে রয়েছে ডিজিটাল জুম, অটো-ফোকাস, কন্টিনিউয়াস ফোকাস, টাচ-ফোকাস, ফেস ডিটেকশন, ফিঙ্গারপ্রিন্ট ক্যাপচার, ফেস বিউটি, প্যানোরমা, এইচডিআর, সিন ফ্রেম, সেলফ টাইমার, ইত্যাদি।

ফোনের সুরক্ষায় যুক্ত হয়েছে ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর। যার মাধ্যমে আঙুলের ছোঁয়ায় মাত্র ০.২ সেকেন্ডেই ফোনটি আনলক করা যাবে। ফলে স্ক্রিন আনলকে পাসওয়ার্ড টাইপ করা বা প্যাটার্ন আঁকার প্রয়োজন পড়বে না। ব্যবহারকারী ছাড়া আর কেউ ফোন আনলক করতে পারবে না। এতে ফোনের তথ্য থাকবে সুরক্ষিত। ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর হিসেবে পাঁচ আঙুলের ব্যবহার করা যাবে।

অ্যান্ড্রয়েড নূগাট ৭.০ অপারেটিং সিস্টেমে পরিচালিত স্মার্টফোনটির প্রয়োজনীয় পাওয়ার ব্যাক-আপের জন্য রয়েছে ২৮৫০ মিলিঅ্যাম্পিয়ার লি-পলিমার ব্যাটারি।

থ্রিজি সাপোর্টেড ফোনটিতে একসঙ্গে ব্যবহার করা যাবে দুটি সিম। কানেক্টিভিটির জন্য আছে ওয়াই-ফাই, ব্লুটুথ ভার্সন ৪, ল্যান হটস্পট, ওটিএ ও মাইক্রো ইউএসবি২ সুবিধা, জিপিএস, এ-জিপিএস নেভিগেশন, প্রক্সিমিটি, অ্যাকসিলেরোমিটার (থ্রিডি), গ্র্যাভিটি (থ্রিডি), লাইট ইত্যাদি। মাল্টিমিডিয়া ফিচার হিসেবে আছে ফুল এইচডি ভিডিও প্লে-ব্যাক ও রেকর্ডিং সুবিধাসহ এফএম রেডিও। অন্যান্য ফিচারের মধ্যে রয়েছে মাল্টি উইন্ডো, মিরা ভিশন ডিসপ্লে প্রযুক্তি, ব্যাটারি সেভার ইত্যাদি।

ফুল ভিশন ডিসপ্লের এই ফোনটি দেশের সব ওয়ালটন প্লাজা, ব্র্যান্ড এবং রিটেইল আউটলেটে পাওয়া যাচ্ছে। দাম মাত্র ৮ হাজার ২৯০ টাকা। আকর্ষণীয় ডিজাইনের ফোনটি মিলছে কালো ও সোনালি এই দুটি ভিন্ন রঙে।

উল্লেখ্য, দেশের সকল ওয়ালটন প্লাজা ও ব্র্যান্ড আউটলেটে ০% ইন্টারেস্টে ৬ মাসের ইএমআই সুবিধায় কেনা যায় সব মডেলের ওয়ালটন স্মার্টফোন। একই সঙ্গে ১২ মাসের কিস্তি সুবিধায়ও কেনার সুযোগ থাকছে। সর্বোত্তম বিক্রয়োত্তর সেবার জন্য রয়েছে দেশব্যাপী বিস্তৃত সার্ভিস নেটওয়ার্ক।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *