কঠোর গোপনীয়তায় যমজের মা হলেন পুতিনের প্রেমিকা

অলিম্পিকে সোনাজয়ী প্রাক্তন জিমনাস্ট ও প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের দীর্ঘদিনের প্রেমিকা আলিনা কবেভা যমজ সন্তানের জন্ম দিয়েছেন। মস্কোর একটি হাসপাতালে কঠোর গোপনীয়তায় তার সিজারিয়ান অপারেশন হয়। এ বিষয়ে খবর প্রকাশ করলেও পরে তা সরিয়ে নিয়েছে রুশ সংবাদ মাধ্যম। নিউইয়র্ক পোস্ট, ডেইলি মেইল।

ক্রেমলিন রাষ্ট্রপতি পুতিনের ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে রাশিয়ার রাষ্ট্রীয় প্রচার মাধ্যমে কোন খবর প্রকাশ করে না। কিছুদিন আগে এক সাংবাদিক ৩৬ বছর বয়সী কবেভকে পুতিনের সঙ্গে সম্পর্কের ব্যাপারে প্রশ্ন করলে জবাবে তিনি বলেছিলেন, ‘আমরা গুজব নিয়ে মন্তব্য করি না।’

এই মাসের শুরুতে সাবেক জিমনাস্ট কবেভকে মস্কোর কুলাকভ রিসার্চ সেন্টার ফর গাইনেকোলজি হাসপাতালের চতুর্থ তলায় ভিআইপি কেবিনে ভর্তি করা হয়। এরপরই হাসপাতালটির অধিকাংশ কর্মীকে সাময়িক অব্যাহতি দেয়া হয়। চিকিৎসার সঙ্গে যুক্ত কয়েকজন ছাড়া বাকিদের চতুর্থ তলায় প্রবেশ নিষিদ্ধ করা হয়।

এ নিয়ে রুশ সংবাদপত্র মোস্কোভস্কি কোমসোমোল্টস নিজস্ব ওয়েবসাইটে খবর প্রকাশ করে। পরে হঠাৎ করে সেটি মুছে ফেলা হয়। এ সংক্রান্ত তথ্যও রাশিয়ার সকল ওয়েবসাইট থেকে সরিয়ে ফেলা হয়।

তবে নিষেধাজ্ঞার মধ্যেও ডিএনআই নামে একটি রুশ ওয়েবসাইটে এ সংক্রান্ত খবর দেয়া হয়। সেখানে মন্তব্য করা হয়, ‘কবেভা যমজের জন্ম দিয়েছে এবং অদৃশ্য হয়ে গেছে।’

কঠোর গোপনীয়তায় যমজের মা হলেন পুতিনের প্রেমিকা

২০০৪ সালে আলিনা কবেভার সঙ্গে পুতিন।

এছাড়া রাশিয়ান গোয়েন্দা সংস্থার সঙ্গে যুক্ত অনুসন্ধানী সাংবাদিক সের্গেই কেনেভ সামাজিক মাধ্যমে লিখেছেন, ‘কবেভা সিজারিয়ান অপারেশন দ্বারা যমজ ছেলেদের জন্ম দিয়েছে এবং সুস্থ আছে।’

৬৬ বছর বয়সী পুতিন প্রায় এক দশক ্আগে স্ত্রীর সঙ্গে বিচ্ছেদের ঘোষণা দেন। এরপর থেকে আর বিয়ে করেননি তিনি। তবে কবেভাকেই রাশিয়ার গোপন ফার্স্টলেডি মনে করা হয়।