কুয়েতের আমিরের বক্তব্য আদালতকে জানালেন খালেদা জিয়ার আইনজীবী

জিয়ার অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় অর্থ পাঠানোর ব্যাপারে কুয়েতের আমিরের বক্তব্য আদালতকে জানিয়েছেন বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার আইনজীবী।

রাজধানীর বকশীবাজারে ঢাকা আলীয়া মাদরাসা মাঠে স্থাপিত ঢাকার বিশেষ জজ ড. আখতারুজ্জামান খানের আদালতকে বৃহস্পতিবার খালেদা জিয়ার পক্ষে যুক্তিতর্ক উপস্থাপনকালে তার আইনজীবী সাবেক অ্যাটর্নি জেনারেল এ জে মোহাম্মদ আলী এ কথা জানান।

আজ সপ্তম দিনের মতো এ যুক্তিতর্ক উপস্থাপন চলে। এর আগে খালেদা জিয়ার পক্ষে যুক্তিতর্ক উপস্থাপন করেছেন তার আইনজীবী রেজাক খান ও খন্দকার মাহবুব হোসেন। গতকালও যুক্তিতর্ক উপস্থাপন করেন এ জে মোহাম্মদ আলী।

আজ মোহাম্মদ আলী আদালতকে বলেন, তিনি ঢাকায় অবস্থিত কুয়েত অ্যাম্বেসির মাধ্যমে এ ট্রাস্টে পাঠানো টাকার ব্যাপারে কুয়েতের আমিরের বক্তব্য জানতে চেয়েছিলেন। তারাও এর জবাব দিয়েছেন। কুয়েতের আমির জানিয়েছেন, এ অর্থ জিয়া অরফানেজ ট্রাস্টে পাঠানো হয়েছে। এটি একটি প্রাইভেট ট্রাস্ট। শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের স্মৃতি রক্ষার্থে এ টাকা পাঠানো হয়েছে।

এ সময় আদালত এ বক্তব্যের ডকুমেন্ট চাইলে খালেদা জিয়ার আইনজীবী অ্যাম্বেসি থেকে পাঠানো চিঠি আদালতে উপস্থাপন করেন।

মোহাম্মদ আলী আদালতকে বলেন, ৭ জন সাক্ষী ও তদন্ত কর্মকর্তা মিলে জাল নথি তৈরি করে বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে এ মিথ্যা মামলা করা হয়েছে। এসব ভুয়া কাগজপত্র ও জাল নথিতে কারো সাক্ষর নেই। এসব নথিতে ওভাররাইটিং ও ঘষামাজা করা আছে। এ ছাড়া ব্যাংক অ্যাকাউন্ট খোলার সময় করা ডকুমেন্টে বেগম খালেদা জিয়ার কোনো স্বাক্ষর বা অনুমোদন নেই।

এ জে মোহাম্মদ আলীর যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শেষ না হওয়ায় আদালত আগামী ১০ ও ১১ জানুয়ারি পরবর্তী শুনানির দিন ধার্য করেছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *