কেন স্বর্ণের চাহিদা কমছে?

নিরাপদ বিনিয়োগের পণ্য বলে খ্যাত স্বর্ণের বাজারে এখন খানিকটা মন্দা বিরাজ করছে। সেপ্টেম্বর শেষ হওয়া প্রান্তিকে গেলো বছরের একই সময়ের চেয়ে পণ্যটির চাহিদা নয় শতাংশ কমে ৯১৫ টনে অবস্থান করছে। গেলো আট বছরে যা সর্বনিম্ন।

বিশ্ববাজারে স্বর্ণের চাহিদা ও যোগান নিয়ে গবেষণা করা প্রতিষ্ঠান ওয়ার্ল্ড গোল্ড কাউন্সিল (ডব্লিউজিসি) এ তথ্য জানিয়েছে। প্রতিষ্ঠানটি বলছে, চলতি বছরে এই চাহিদা কমেছে ১২ শতাংশ।

প্রতিবেদনে বলা হচ্ছে, জুয়েলারি খাতে পণ্যটির চাহিদা দুর্বল ও শেয়ারবাজারে মিউচুয়াল ফান্ডের মতো স্বর্ণের লেনদেন ফান্ডের প্রবাহে ধীরগতি থাকায় তার সার্বিক প্রভাব পড়েছে স্বর্ণবাজারে।

তবে এই উপমহাদেশে সবচেয়ে বেশি স্বর্ণ আমদানি করা ভারত যে এই সূচকের কলকাঠি নাড়িয়েছে তা অস্বীকার করার উপায় নেই।

সম্প্রতি চালু হওয়া দেশটির নতুন ভ্যাট ব্যবস্থা গুড অ্যান্ড সার্ভিসেস ট্যাক্স (জিএসটি) বড় ধরনের প্রভাব ফেলেছে। এতে করে ভারতের মানুষ জুলাই-সেপ্টেম্বর মেয়াদে স্বর্ণের পণ্য কেনা কমিয়ে দিয়েছে।

চার ‘ভিত্তিহার’ নিয়ে চালু হওয়া মোদি সরকারের ওই কর ব্যবস্থায় পণ্য ও পরিষেবা ভেদে ২৮ শতাংশ পর্যন্ত কর আরোপ করা হয়।

এছাড়া বিশ্বব্যাপী এন্টি মানি লন্ডারিং আইন আরো কঠোর হওয়াকেও দামী পণ্যটির চাহিদা কমে যাওয়ার অন্যতম কারণ বলে মনে করা হচ্ছে।

ডব্লিউজিসির তথ্য অনুযায়ী, তিন মাসে দেশটিতে শুধু জুয়েলারি পণ্যের চাহিদা কমেছে ২৫ শতাংশ। এর আগের তিন প্রান্তিক অবশ্য আমদানি সূচকে টানা ঊর্ধ্বমুখী ছিল ভারত।

তবে ভারতে ডব্লিউজিসি’র ব্যবস্থাপনা পরিচালক সোমাসুন্দরাম পিআর মনে করেন, বিয়ে এবং দিওয়ালি উৎসবের কারণে অক্টোবর-ডিসেম্বরে স্বর্ণের চাহিদা বাড়তে পারে। আর সে কারণে পুরো বছরে ভারতে স্বর্ণের চাহিদা গেলো পাঁচ বছরের গড়ের কাছাকাছি থাকবে।

Leave a Reply