কেরামত আলী ‘হচ্ছেন’ শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী

 

নতুন প্রতিমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেওয়া কাজী কেরামত আলী শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে দায়িত্ব পেতে যাচ্ছেন বলে সাংবাদিকদের জানিয়েছেন।

শপথ নিলেন চার মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রী

মঙ্গলবার সন্ধ্যায় বঙ্গভবনে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদের কাছ থেকে প্রতিমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেন রাজবাড়ী-১ আসনের এই সংসদ সদস্য।

শপথ অনুষ্ঠান শেষে রাতে তিনি বঙ্গভবন থেকে বেরিয়ে আসার সময় সাংবাদিকরা জানতে চান- কোন মন্ত্রণালয়?

জবাবে কাজী কেরামত শুধু বলেন, “শিক্ষা মন্ত্রণালয়।”

পরে তিনি বলেন, “যে দায়িত্ব আমাকে দেওয়া হয়েছে তা সম্মানের সঙ্গে পালন করব।”

প্রশ্নফাঁস নিয়ে সমালোচনার মধ্যে থাকা শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সমস্যাগুলো কীভাবে মোকাবেলা করবেন- এমন প্রশ্নে নতুন এই প্রতিমন্ত্রী বলেন, “যেসব গ্যাপ আছে, সেগুলো সমন্বয় করে পূরণের চেষ্টা করব।”

আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন বর্তমান সরকারের শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ গত ২০০৯-২০১৪ মেয়াদেও একই দায়িত্বে ছিলেন। আর প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী হিসেবে আছেন মোস্তাফিজুর রহমান ফিজার।

রাজবাড়ীতে আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে প্রভাবশালী কাজী পরিবারের ছেলে কাজী কেরামত আলীর জন্ম ১৯৫৪ সালের ২২ এপ্রিল। তার বাবা কাজী হেদায়েত হোসেন ছিলেন গণপরিষদ সদস্য।

১৯৯১ সালে জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হওয়ার পর পরের বছরই উপ-নির্বাচনে প্রার্থী হয়ে এমপি নির্বাচিত হন কাজী কেরামত আলী। এরপর আরও তিনবার তিনি রাজবাড়ী-১ আসন থেকে এমপি নির্বাচিত হয়েছেন।

মঙ্গলবার বঙ্গভবনের শপথ অনুষ্ঠানে মন্ত্রী হিসেবে শপথ নেন মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করে আসা নারায়ন চন্দ্র চন্দ, লক্ষ্মীপুরের সাংসদ এ কে এম শাহজাহান কামাল এবং বেসিস সভাপতি মোস্তাফা জব্বার।

তাদের কে কোন দপ্তর পাচ্ছেন, তার আনুষ্ঠানিক ঘোষণা আসবে বুধবার। তবে নারায়ন চন্দ্র মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ, শাহজাহান কামাল সমাজকল্যাণ এবং মোস্তাফা জব্বার ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব পাচ্ছেন বলে আভাস পাওয়া গেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Shares