ক্যাপসিকামের উপকারিতা

ক্যাপসিকামের রয়েছে নানা উপকারিতা। আপনার প্রতিদিনের খাদ্যতালিকায় একটি করে ক্যাপসিকাম রাখলে অনেকরকম অসুখ থেকে মুক্তি পেতে পারেন।

জেনে নেই ক্যাপসিকামের স্বাস্থ্যগুণ সম্পর্কে-

রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়:
ক্যাপসিকামের ভিটামিন ‘সি’ এবং ‘কে’ দেহের সার্বিক উন্নয়নে কাজ করে। এতে করে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি পায় অনেকাংশে, যার ফলে ছোটোখাটো নানা রোগ থেকে মুক্ত থাকা সম্ভব হয়।

দৃষ্টিশক্তি উন্নত হয়:
ক্যাপসিকামে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন ‘সি’। ভিটামিন ‘সি’ দেহে আয়রন শোষণে সহায়তা করে। এতে দেহে আয়রনের অভাব জনিত সমস্যা দূর হয়। এতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন ‘এ’, ‘সি’ এবং বেটা ক্যারোটিন যা দৃষ্টিশক্তি সংক্রান্ত নানা সমস্যা দূর করে এবং দৃষ্টিশক্তি উন্নত করতে সাহায্য করে।

ওজন কমায়:
ক্যাপসিকামের অ্যাক্টিভেটিং থার্মোজেনেসিস এবং হজম শক্তি উন্নত করার ক্ষমতা দ্রুত ওজন কমাতে সহায়ক।

ক্যান্সারের প্রতিরোধক:
ক্যাপসিকামের অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট ও অ্যান্টি ইনফ্লেমেটরি উপাদান ক্যান্সার প্রতিরোধ করতে বিশেষভাবে সহায়ক। ক্যাপসিকামে রয়েছে সালফার কম্পাউন্ড যা গ্যাস্ট্রিক ক্যান্সার এবং এসোফেগাল ক্যান্সার প্রতিরোধ করার ক্ষমতা রাখে।

উচ্চ রক্ত চাপ নিয়ন্ত্রণ:
ক্যাপসিকামে রয়েছে লাইকোপেন না কার্ডিওভ্যস্কুলার নানা সমস্যা দূর করতে সহায়তা করে এবং হৃদপিণ্ড সুস্থ রাখে। উচ্চ রক্তচাপের সমস্যা নিয়ন্ত্রণে রাখতেও বিশেষভাবে সহায়ক ক্যাপসিকাম। এর ক্যাপসাইসিন উচ্চ রক্ত চাপের সমস্যা নিয়ন্ত্রণে রাখতে সহায়তা করে।

এছাড়াও পরীক্ষায় দেখা গিয়েছে ক্যাপসিকামের জুস হজম সংক্রান্ত নানা সমস্যা ও পেটের পীড়া জনিত রোগ যেমন গ্যাস হওয়া, ডায়রিয়া ইত্যাদি দূর করতে সহায়তা করে।

Leave a Reply