ক্যামেরা বের করতেই সাংবাদিককে পেটালো সার্জেন্ট

রাজধানীর মৎস্য ভবন মোড়ে এক সার্জেন্টের মারধরের শিকার হয়েছেন ফটোসাংবাদিক। গতকাল বিকাল সোয়া ৪ টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনার শিকার হলেন মানবজমিনের নাসির উদ্দিন।
ভুক্তভোগী নাসির উদ্দিন জানান, বিকালে প্রেসক্লাব থেকে মোটরসাইকেলে কাওরানবাজারে অফিসে আসছিলেন। তার মোটরসাইকেলের পিছনে আরোহী ছিলেন জনকণ্ঠের জীবন ঘোষ। মোটরসাইকেলটি মৎস্য ভবন মোড় অতিক্রম করার সময় সার্জেন্ট মুস্তাইন কাগজপত্র তল্লাশির জন্য থামার নির্দেশ দেন। সার্জেন্ট কাগজপত্র পরীক্ষা করার পর তাদের হেলমেট না থাকার কারণ জানতে চান।
এ সময় নাসির উদ্দিন জানান ২/৩ দিন আগে তার হেলমেটটি চুরি হয়ে গেছে। তিনি নিজের নিরাপত্তার জন্য শিগগির একটি হেলমেট কিনবেন। তিনি সাংবাদিক পরিচয় দিয়ে তার মোটরসাইকেলের বিরুদ্ধে মামলা না করার অনুরোধ করেন। এতে সার্জেন্ট তাদের হলুদ সাংবাদিক হিসেবে গালাগাল করতে থাকেন।
এর তীব্র প্রতিবাদ করলে সার্জেন্ট নাসির উদ্দিনের টি-শার্ট চেপে ধরে চড় ও থাপ্পড় মারেন। এ সময় তিনি তার ক্যামেরা বের করলে সার্জেন্ট ক্যামেরাটি কেড়ে নেন। একপর্যায়ে সার্জেন্ট এই অপরাধ ঢাকার জন্য মামলা দায়ের করার মেশিন রাস্তায় আছড়ে মেরে ভেঙে ফেলেন।
পরে তিনি টি-শার্ট চেপে ধরে তাকে মৎস্য ভবন পুলিশ বক্সে বসিয়ে রাখেন। কিছু সময় পর সেখানে একজন সহকারী কমিশনার উপস্থিত হলে তার সামনে নাসিরকে চড় থাপ্পড় মারতে থাকেন সার্জেন্ট মুস্তাইন। পরে প্রেসক্লাব থেকে সাংবাদিকরা গিয়ে নাসির ও জীবনকে পুলিশের হাত থেকে উদ্ধার করে নিয়ে আসেন।
এ ব্যাপারে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের মিডিয়া অ্যান্ড পাবলিক রিলেশন শাখার উপ-কমিশনার মাসুদুর রহমান বলেন, ঘটনাটি যার দ্বারাই ঘটুক কেউ অন্যায় করলে তার অবশ্যই তদন্ত করে যথোপযুক্ত শাস্তির ব্যবস্থা নেয়া হবে।  অভিযুক্ত সার্জেন্ট মুস্তাইনকে দায়িত্ব থেকে প্রত্যাহার করা হয়েছে। ঘটনাটি তদন্তে ট্রাফিক (পশ্চিম) শাহবাগ জোনের সহকারী কমিশনারকে প্রধান করে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Shares