গর্ভাবস্থায় ডায়াবেটিসে আক্রান্ত হয় ২০ ভাগ নারী

শতকরা ২০ ভাগ নারী গর্ভাবস্থায় ডায়াবেটিসে আক্রান্ত হয়। পরবর্তীতে টাইপ-টু ডায়াবেটিসে আক্রান্ত হওয়ার ঝুকিতে থাকে মা ও শিশু উভয়ে। যা নারী ও শিশু স্বাস্থ্যের জন্য বড় হুমকি। একমাত্র সচেতনতা ও পরিকল্পিত গর্ভধারণ পারে মা ও শিশুকে এই দুর্যোগ হতে রক্ষা করতে। তবে নিয়মতান্ত্রিক জীবন যাপন করলে ডায়াবেটিস থাকা সত্ত্বেও একজন মানুষ সুস্থ জীবন যাপন করেত পারে। গর্ভাবস্থায় ডায়াবেটিস আক্রান্ত হওয়া বর্তমানে একটি বড় সমস্যা এবং এ সমস্যার কারণ হল অপরিকল্পিত গর্ভধারণ। এজন্য এবারের বিশ্ব ডায়াবেটিস দিবসের প্রতিপাদ্য ছিল- ‘সকল গর্ভধারণ হোক পরিকল্পিত’।

১৪ নভেম্বর মঙ্গলবার ‘বিশ্ব ডায়াবেটিস দিবস’ পালন উপলক্ষে আয়োজিত বিভিন্ন অনুষ্ঠানে সংশ্লিষ্ট বিশেষজ্ঞরা এসব কথা বলেন। বিভিন্ন কর্মসূচি পালনের মধ্য দিয়ে দিবসটি যথাযথ মর্যাদায় পালিত হয়।

রাজধানীর বারডেম হাসপাতাল মিলনায়তনে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী মেহের আফরোজ চুমকি। তিনি বলেন, ডায়াবেটিস হল সকল রোগের আহবায়ক। একমাত্র সচেতনতা ও পরিকল্পিত গর্ভধারণ নারীকে এই দুর্যোগ হতে রক্ষা করতে পারে। ডায়াবেটিস আক্রান্ত রোগীরা কিডনি, হূদরোগ ও চোখের সমস্যাসহ নানাবিধ রোগে আক্রান্ত হওয়ার আশংকা থাকে।

বাংলাদেশ ডায়াবেটিক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক এ কে আজাদ খানের সভাপতিত্বে সভায় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন সমিতির মহাসচিব মো. সাইফ উদ্দিন, সমিতির মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা নাজমুন নাহার, সমিতি ল্যাবরেটরি উন্নয়ন প্রকল্পের পরিচালক অধ্যাপক ডা. শুভাগত চৌধুরী প্রমুখ।

Leave a Reply