ঘূর্ণি জাদুকর রফিককে কোচ হিসেবে চায় বিসিবি

বাংলাদেশের ক্রিকেটের উত্থানলগ্নের মহাতারকা তিনি। ওই সময়ে বিশ্বমানের স্পিনার হিসেবে স্বীকৃতি আদায় করে নিতে পেরেছিলেন মোহাম্মদ রফিক। তার অবসরের পর অনেক বছর কেটে গেলেও বিসিবি বড় কোনো ক্ষেত্রে কাজে লাগায়নি রফিককে। এবার হয়তো ঘুম ভেঙেছে দেশের ক্রিকেটের সর্বোচ্চ সংস্থাটির। বাংলাদেশের স্পিন কোচের পদটা আপাতত ফাঁকা। এই পদেই অসীন হতে ঘূর্ণি জাদুকরকে প্রস্তাব দিয়েছে বিসিবি।

গত জানুয়ারিতে টাইগাররা ঘরের মাঠে ত্রিদেশীয় ওয়ানডে সিরিজ, দ্বিপাক্ষিক টেস্ট ও টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলেছে স্পিন কোচ ছাড়াই। এরপর শ্রীলঙ্কায় ত্রিদেশীয় নিদাহাস ট্রফি টি-টোয়েন্টি সিরিজেও কোচ বিহীন ছিল বাংলাদেশ। সামনেই আফগানিস্তান সিরিজ। ভারতের দেরদুনের উইকেট স্পিনবান্ধব উইকেটে খেলার সম্ভাবনাই বেশি। তার মধ্যে প্রতিপক্ষ দলে আছেন রশিদ খানের মতো স্পিনাররা। তাই আসন্ন সিরিজের জন্যই সাকিব-মিরাজদের কোচ নিয়োগ দিতে চায় বিসিবি।

জানা গেছে, বাংলাদেশ দলের কিংবদন্তি স্পিনার মোহাম্মদ রফিককে আনুষ্ঠানিক প্রস্তাব দিয়েছেন বিসিবি প্রধান নাজমুল হাসান পাপন। রফিক, বাশারদের সাবেক কোচ গর্ডন গ্রিনিজের সঙ্গে পুনর্মিলন অনুষ্ঠানে রফিককে আনুষ্ঠানিক প্রস্তাব দেয় বিসিবি প্রধান। বিসিবি থেকে স্পিন কোচের অফারটা রফিকের কাছে একটু দেরিতে এলেও বেশ আনন্দিত বাংলাদেশের এই কিংবদন্তী বা-হাতি স্পিনার। সাবেক ক্রিকেটারদের মিলনমেলায় অনুষ্ঠানে প্রস্তাব পেয়ে বেশ খুশি তিনি।

গণমাধ্যমের কাছে রফিক বলেছেন, ‘এইটা আমি আরও আগে আশা করেছিলাম। বিসিবি থেকে অফারটা আরও আগে পাব। তারপরেও সব মিলিয়ে আমি খুশি। এত ভালো একটা অনুষ্ঠানে এমন একটা অফার পেলাম। সত্যি কথা বলতে, দেশের মানুষও খুশি হবে যখন আমি দলের হয়ে কাজ করব।’

এর আগে অস্ট্রেলিয়া সিরিজের আগে বাংলাদেশ দলের স্পিন কোচ হিসেবে নিয়োগ দিয়েছিল ভারতের সুনীল জোশিকে। মাত্র দুই মাসের জন্য দলের স্পিন কোচ হিসেবে এসেছিলেন তিনি। নিজের দায়িত্ব নিয়ে রফিক আরও বলেন, ‘আমাদের পাইপলাইনে ভালো মানের কোন স্পিনার খুঁজে পাচ্ছি না। আমার ক্রিকেট ক্যারিয়ারে দেশের থেকে যা পেয়েছি, দেশকে আরও অনেক কিছু দিতে চাই। যদি আমি একাডেমিতে যোগ দিই কিংবা যেখানেই কাজ করি, আমি মনে করি সেটা সফলভাবেই করতে পারব।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *