চলে গেলেন সুপ্রিয়া দেবী

বাংলা চলচ্চিত্রের স্বর্ণযুগের আরেকটি অধ্যায়ের সমাপ্তি ঘটলো। চলে গেলেন মহানয়ক উত্তম কুমারের সমসাময়িক বিখ্যাত নায়িকা সুপ্রিয়া দেবী।

শুক্রবার ভোরে তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। তার বয়স হয়েছিলো ৮৫ বছর। হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে তার মৃত্যু হয়।

সুপ্রিয়া দেবী মৃত্যুর খবর পেয়ে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘তাঁর মৃত্যুতে বাংলা চলচ্চিত্রের অপূরণীয় ক্ষতি হয়ে গেল। শেষ হল উত্তসুপ্রিয়া দেবীর প্রয়াণে বাংলার স্বর্ণযুগের আর এক অধ্যায় শেষ হয়ে গেল। সোনার হরিণ, শুন বরনারী, উত্তরায়ন, সূর্য্যশিখা, সবরমতী, মন নিয়ে-এর মতো একাধিক ছবিতে তাঁকে উত্তমকুমারের বিপরীতে মুখ্য ভূমিকায় দেখা গিয়েছে তাঁকে। ছয়ের দশকের শেষের দিক থেকে পরবর্তী এক দশকে বেশিরভাগ ছবিতেই উত্তমকুমারের নায়িকার ভূমিকায় তাঁকে দেখা গিয়েছে।

মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশে অভিনেত্রীর বালিগঞ্জ সার্কুলার রোডের বাড়িতে যান মন্ত্রী শোভনদেব চট্টোপাধ্যায়।

তার মৃত্যুতে বর্ষীয়ান অভিনেতা সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায় বলেন, ‘দীর্ঘ দিনের বন্ধুকে হারালাম, অনেক ছবিতে এক সঙ্গে কাজ করেছি। এখন আমি কথা বলার অবস্থায় নেই।’

‘সোনার হরিণ’, ‘শুন বরনারী’, ‘উত্তরায়ন’, ‘সূর্য্যশিখা’, ‘সবরমতী’, ‘মন নিয়ে’-এর মতো একাধিক ছবিতে তাঁকে উত্তমকুমারের বিপরীতে মুখ্য ভূমিকায় দেখা গিয়েছে তাঁকে। ছয়ের দশকের শেষের দিক থেকে পরবর্তী এক দশকে বেশিরভাগ ছবিতেই উত্তমকুমারের নায়িকার ভূমিকায় তাকে দেখা গিয়েছে।

সূত্র :  আনন্দবাজার

Leave a Reply