ছেলেকে সেঞ্চুরি উৎসর্গ ইমরুলের?

সেই অক্টোবর, সেই মিরপুর, সেই শের-ই-বাংলা স্টেডিয়াম। আরেকটি ওয়ানডে সেঞ্চুরি। আগেরটির সঙ্গে দূরত্ব দুবছরের। আর দিনের হিসেবে মাঝে কেটে গেছে ৭৪৪ দিবস। বিপদে দলের ত্রাতা হয়ে রোববার জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে শতক তুলে নিয়েছেন ইমরুল কায়েস।

ইমরুল নিজের আগের ওয়ানডে শতকটি করেছিলেন ইংল্যান্ডের বিপক্ষে। ২০১৬ সালের ৭ অক্টোবর, এই মিরপুরেই। দুই বছর ১৪ দিন পর পেলেন ক্যারিয়ারের তৃতীয় তিনঅঙ্ক। উদযাপনটা এমনিতেই অন্যরকম হতে পারত এ বাঁহাতি ওপেনারের! সেটিকে আরও বিশেষভাবে বিশেষ ভঙ্গিমায় উদযাপন করেছেন ইমরুল।

সেঞ্চুরি হাঁকিয়েই হেলমেট খুলে কোলে নবজাতক নেয়ার মতো করে ব্যাট নিয়ে দোলালেন ইমরুল। কিসের ইশারা? যারা ক্রিকেটের সঙ্গে ক্রিকেটারদের হাড়ির খবর রাখেন, তাদের বুঝতে ভুল হওয়ার কথা নয়! কয়েক সপ্তাহ আগে পৃথিবীর আলো দেখা ছেলেকে উদ্দেশ্য করেই যে ওরকম উদযাপন করেছেন ইমরুল, সেটি আপাতত তার মুখে জেনে নেয়ার উপায় নেই। তবে ছেলেকেই যে ‘সেঞ্চুরি’ উৎসর্গ, বোঝারও বাকি থাকল না কারও!

গত ৩০ সেপ্টেম্বর পৃথিবীতে এসেছে ইমরুল-নাঈমা দম্পতির প্রথম সন্তান। ছেলে ভূমিষ্ঠ হওয়ার পর প্রথম ম্যাচেই পেলেন সেঞ্চুরি। ছেলে সৌভাগ্যই বয়ে এনেছে বটে! দুইয়ে দুইয়ে চার মিলিয়ে ইমরুলও মাঠেই সেরে নিলেন বাবা হওয়ার উদযাপনটা।

ইংল্যান্ডের বিপক্ষে শতকটা ছিল স্রোতের বিপরীতে লড়ে। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে শতকেও একই গল্প লিখলেন ইমরুল। নিজে যখন একপাশ সামলে সাবলীলভাবে খেলছেন, অন্যপাশে সতীর্থদের সাজঘরে ফেরার তাড়া! একজন স্বীকৃত ব্যাটসম্যানের অভাবে আটকে যেতে পারতেন। তবে শেষদিকে মোহাম্মদ সাইফউদ্দিনকে নিয়ে বড় জুটি গড়ে দলকে চ্যালেঞ্জিং সংগ্রহই এনে দিয়েছেন।

ক্যারিয়ারের তৃতীয় শতকটি ১১৯ বলে খেলে তোলা ইমরুলের, যাতে ৮ চারের সঙ্গে ছয়ের মার তিনটি। পরে ক্যারিয়ারসেরা ইনিংস খেলে থেমেছেন ১৪৪ রানে। ১৪০ বলের ইনিংসটি ১৩ চারের সঙ্গে ৬ ছক্কায় সাজানো।

Leave a Reply