জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলা চলতে বাধা নেই

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলার কার্যক্রম স্থগিত চেয়ে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার  করা আবেদনে ‘নো অর্ডার’ দিয়েছেন আপিল বিভাগ। এর ফলে বিচারিক আদালতে এই মামলার কার্যক্রম চলতে বাধা নেই বলে জানিয়েছেন আইনজীবীরা।

সোমবার  (৩০ অক্টোবর) সকালে ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি মো. আবদুল ওয়াহহাব মিঞার নেতৃত্বাধীন চার বিচারপতির আপিল বেঞ্চ এই আদেশ দেন।

আদালতে আবেদনের পক্ষে ছিলেন জ্যেষ্ঠ আইনজীবী এ জে মোহাম্মদ আলী। সঙ্গে ছিলেন ব্যারিস্টার রাগিব রউফ চৌধুরী। দুদকের পক্ষে ছিলেন আইনজীবী খুরশীদ আলম খান।

আইনজীবী খুরশীদ আলম খান জানান, এ আবেদনে খালেদা জিয়ার পক্ষে মামলার কার্যক্রম স্থগিত চাওয়া হয়েছিল। আদালত ‘নো অর্ডার’ আদেশ দিয়েছেন। ফলে মামলার কার্যক্রম চলতে বাধা নেই। এ বিষয়ে হাইকোর্টের আদেশ গতকাল (রোববার) বের হয়েছে। এই আদেশের বিরুদ্ধে আসামি পক্ষ চাইলে লিভ টু আপিল করতে পারে।

গত ২২ অক্টোবর (রোববার) জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় রাষ্ট্রপক্ষের ৯ সাক্ষীকে জেরা চেয়ে বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার  করার আবেদন পর্যবেক্ষনসহ নিষ্পত্তি করে দেন বিচারপতি মো. শওকত হোসেন ও বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদারের হাইকোর্ট বেঞ্চ। অন্য দুই সাক্ষীর পুনঃজেরার প্রয়োজন নেই বলেও আদেশ দেন।

এর আগে গত ২২ অক্টোবর খালেদার আবেদন পর্যবেক্ষণসহ নিষ্পত্তি করে দেন হাইকোর্ট।

বিচারপতি মো. শওকত হোসেন ও বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদারের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন। একইসঙ্গে আরো দুই সাক্ষীর পুনঃজেরার প্রয়োজন নেই বলে আদেশ দিয়েছেন আদালত। পরে এই আদেশের বিরুদ্ধে ও মামলার কার্যক্রম স্থগিত চেয়ে আপিলে আবেদন করেন খালেদা জিয়া।

উল্লেখ্য, জিয়া অরফানেজ ট্রাস্টের অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ এনে ২০০৮ সালে খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানসহ ছয়জনের বিরুদ্ধে রমনা থানায় আরও একটি মামলা করে দুদক। এই মামলার অন্য আসামিরা হলেন মাগুরার সাবেক সংসদ সদস্য কাজী সালিমুল হক কামাল, ব্যবসায়ী শরফুদ্দিন আহমেদ, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সাবেক সচিব কামাল উদ্দিন সিদ্দিকী ও সাবেক রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের ভাগ্নে মমিনুর রহমান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Shares