দল বদলের ছোঁয়া রিয়াল-বার্সাতেও!

২০১৭ সাল শেষ হতেই, স্বাভাবিক মানুষ বলেছেন ‘শুভ নববর্ষ’। আর ফুটবলপাগলরা ভেবেছে, শুরু হলো শীতকালীন দলবদল! শুরু হয়েছে বহুপ্রতীক্ষিত দলবদলের মৌসুম। এরই মাঝে বেশ কয়েকজন খেলোয়াড় দলও বদলে ফেলেছেন। তবে গুঞ্জনের সংখ্যা এর চেয়েও বহু বহু গুণ বেশি। যে গুজবে অনেকে কান দিচ্ছেন, অনেকে দিচ্ছেন না। সবার আগে যেমন ফিলিপে কুতিনহোর বার্সেলোনায় যোগ দেওয়ার কথাটাই শোনা যাচ্ছে। তবে ৩১ তারিখের আগেই দল পাল্টাতে পারেন কুতিনহো ছাড়া আরও অনেকেই।

গত মৌসুমের চ্যাম্পিয়ন দলে পরিবর্তন চাচ্ছেন চেলসি কোচ আন্তোনিও কন্তে। টাইমস-এর মতে, খুব খুশিমনেই ছেড়ে দিতে চান ডিফেন্সের অন্যতম সেরা অস্ত্র ডেভিড লুইজকে। স্ট্রাইকার বাৎসুয়াইকেও ছেড়ে দিতে তাঁর কোনো সমস্যা নেই। পরিচালকদের জানিয়ে দিয়েছেন এঁদের ছাড়াও তিনি চলতে পারেন। আর এভারটনের রস বার্কলেকে দলে টেনে নিজের ইচ্ছেটাও বুঝিয়ে দিচ্ছেন কন্তে।
তবে তাঁর চাকরিটাও যে খুব একটা নিশ্চিত সেটা কিন্তু বলা যাচ্ছে না। গুঞ্জন উঠেছে ক্লাব পরিচালকেরা তাঁর অপর আস্থা হারিয়েছেন। সম্ভাব্য কোচও খুঁজে ফেলেছেন, ডিয়াগো সিমিওনে। অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদের এই কোচকে নিজেদের ডাগআউটে ভেড়াতে চায় চেলসি। আর কন্তের নামটা জড়িয়ে যাচ্ছে দুই মিলানের সঙ্গে। দুই মিলানই সাফল্যের জন্য কন্তেকে চাচ্ছে কোচ হিসেবে।
এদিকে কন্তের শত্রুতে পরিণত হওয়া মরিনহোও বসে নেই। ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডও চাচ্ছে দলটা সাজিয়ে নিতে। সেল্টিকের এক ২০ বছর বয়সী ডিফেন্ডারে নজর পড়েছে দলটির। কেইরান টিয়ের্নির সঙ্গে চোখ আছে ফুলহামের রায়ান স্যাসেজনেরও ওপর। ছয় মাস আগে দলে টানতে ব্যর্থ হলেও অ্যালেক্স সান্দ্রোকে দলে টানার আশা হারাননি মরিনহো। আর হেনরি মাখিতেরিয়ান ছাড়তে পারেন ইউনাইটেড। দেড় মৌসুমের জন্য ধারে ইন্টারে চলে যাওয়ার খবরও ভেসে বেড়াচ্ছে।
আর দলবদলের খবরে আর্সেনাল না থাকলে তো জমবেই না। আর্সেনাল আছে সব সমস্যার মাঝে। দলের সেরা দুই খেলোয়াড় মেসুত ওজিল আর অ্যালেক্সিজ সানচেজ চুক্তি করতে রাজি না। থিও ওয়ালকটও নাকি চলে যেতে চাইছেন। লিভারপুলের চিন্তা কুতিনহোকে নিয়ে। প্রায় ১৬০ মিলিয়ন ইউরো দিয়ে নাকি তাঁকে নিয়ে যাবে কাতালানরা। তবে এই ১৬০ মিলিয়ন দিয়ে কী করবে সেটাও নাকি ভেবে ফেলেছে, থমাস লেমার। গত গ্রীষ্মে আর্সেনালের লক্ষ্য থমাস লেমারকে ভেড়াতে চান ক্লপ। তবে শেষ চেষ্টা থাকবে কুতিনহোকে ধরে রাখার। আর সিটি ছাড়ছেন আগুয়েরো, তা প্রায় নিশ্চিত। তবে দিয়ারিও গোলের ভাষ্যমতে মাদ্রিদের কাছে এক শর্তে বিক্রি করতে চায় সিটি। যদি নাভাসকে সিটির কাছে বিক্রি করে তবেই।
নাভাসকে বিক্রি করতেও পারে মাদ্রিদ। তরুণ স্প্যানিশ কিপার কেপা নাকি দলটির সঙ্গে মেডিকেল সেরে নিয়েছেন। নাভাস না হোক কিকো ক্যাসিয়া দল ছাড়বেনই। মাদ্রিদ ছাড়ার পথে আছে আরও অনেকেই। মাদ্রিদে খুব একটা সুযোগ পাচ্ছেন না দানি সেবায়োস। তবে জহুরির চোখ ক্লপের চোখ তাঁকে চিনতে ভুল করেনি। সেবায়োস নিজেও যেতে চান লিভারপুলে। আর আক্রমণে নাকি মাওরো ইকার্দিকে কেনায় রাজি হয়েছেন জিদান। অবশ্য টিমো ভেরনারের কথাও শোনা যাচ্ছে। আর কন্তের চোখের বালি হয়ে যাওয়া লুইজ নাকি চাচ্ছেন রিয়াল কিংবা বার্সেলোনায় যেতে!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *