নিষেধাজ্ঞা থেকে মুক্তি পাচ্ছেন স্মিথ-ওয়ার্নার-বেনক্রফট?

বল টেম্পারিং কেলেঙ্কারিতে বিভিন্ন মেয়াদে নিষিদ্ধ সাবেক অধিনায়ক স্টিভেন স্মিথ, তার ডেপুটি ডেভিড ওয়ার্নার এবং ক্যামেরন বেনক্রফটের সাজা নিয়ে আবারও তোলপাড় শুরু হয়েছে অজি ক্রিকেটে। কয়েকদিন আগে প্রকাশিত হয়েছে টেম্পারিং ঘটনা নিয়ে সিডনিভিত্তিক একটি নৈতিকতা কেন্দ্রের স্বাধীন পর্যালোচনা প্রতিবেদন। এতে দোষী করা হয়েছে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়াকে (সিএ)। এরপরেই বোর্ডের বিপক্ষে মুখ খুলছেন সাবেক তারকারা। দাবি করেছেন ক্রিকেটারদের সাজা বাতিলের।

নৈতিকতা কেন্দ্রের ওই রিপোর্ট প্রকাশ হওয়ার পর পদত্যাগ করেছেন অজি ক্রিকেট প্রধান ডেভিড পিভার। পদত্যাগ করেছেন আরও এক শীর্ষ কর্মকর্তা। ওই তিন ক্রিকেটারের সাজা কমানোর জন্য ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়াকে আনুষ্ঠানিক চিঠি দিয়েছে অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন (এসিএ)। তাদের দাবি, স্মিথ-ওয়ার্নারদের ‘লঘু পাপে গুরুদণ্ড’ দেওয়া হয়েছে। সেই চিঠির ব্যাপারে এখন চিন্তাভাবনা করছে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া।

দেশটির ক্রিকেট বোর্ডের প্রধান নির্বাহী কেভিন রবার্টস এই চিঠির বিষয়ে বলেন, ‘কয়েকদিন আগে এসিএ খেলোয়াড়দের শাস্তির বিষয়ে একটি চিঠি দিয়েছে। এটা আসলে আমাকে বা ম্যানেজম্যান্টকে দেয়া হয়নি, দেয়া হয়েছে বোর্ডকে। বোর্ডের বিষয়ে আমার আসলে কিছু বলা উচিত হবে না। তবে এটুকু বলতে পারি, বোর্ড এই চিঠির মর্যাদা দেবে এবং বিষয়টি বিবেচনা করবে।’

উল্লেখ্য, চলতি বছরের মার্চে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে কেপটাউন টেস্টে বল টেম্পারিং কাণ্ডে জড়ান স্মিথ-ওয়ার্নার এবং বেনক্রফট। স্মিথ-ওয়ার্নারের পরিকল্পনা মাঠে গিয়ে বাস্তবায়নের দায়িত্ব পড়েছিল স্বল্প পরিচিত ক্রিকেটার বেনক্রফটের ওপর। টিভি ক্যামেরায় বিষয়টি ধরা পড়ার পর স্মিথ-ওয়ার্নাকে ১ বছর এবং বেনক্রফটকে ৯ মাস নিষিদ্ধ করে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া (সিএ)। এবার তাদের মুক্তি পাওয়ার একটা সুযোগ তৈরি হলো।