পন্টিং কী নিবে অস্ট্রেলিয়ার দায়িত্ব?

পুরো বিষয়টি এখনো প্রাথমিক পর্যায়ে রয়েছে। কিন্তু এরই মধ্যে চাউর হয়ে গেছে, ২০২০ সালে নিজ দেশের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপকে সামনে রেখে রিকি পন্টিংয়ের হাতে অস্ট্রেলীয় টি-টোয়েন্টি দলের দায়িত্ব তুলে দিতে যাচ্ছে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া। পন্টিং অস্ট্রেলিয়ার কোচ হতে পারেন, এই সম্ভাবনা তৈরি হওয়াই হয়তো বড় খবর।

ক্রিকেটের অন্যতম সেরা শক্তি অস্ট্রেলিয়া এখন পর্যন্ত পাঁচবার ওয়ানডে বিশ্বকাপ জিতলেও টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে সাফল্যহীন। এই অবস্থার পরিবর্তনটা পন্টিংয়ের হাত দিয়েই করতে চাইছে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া।

ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার ওয়েবসাইটে প্রকাশিত খবরে বলা হয়েছে, অস্ট্রেলীয় ক্রিকেট বোর্ড এ ব্যাপারে পন্টিংয়ের সঙ্গে আলাপ-আলোচনা চালিয়ে যাচ্ছে। এ ব্যাপারে সিদ্ধান্ত যে দ্রুতই হচ্ছে, এ রকম কোনো আভাস প্রতিবেদনটিতে দেওয়া হয়নি।

অস্ট্রেলিয়ার সাবেক সফল এই অধিনায়কের জন্য অস্ট্রেলীয় ক্রিকেট দলের কোচিং স্টাফ হিসেবে কাজ করা অবশ্য নতুন কিছু নয়। ২০১৭ সালের শুরুতে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে একটি টি-টোয়েন্টি সিরিজে পন্টিং সহকারী কোচ হিসেবে কাজ করেছিলেন। টেস্ট দল ভারত সফরে থাকায় সে সিরিজে অন্তর্বর্তীকালীন কোচের দায়িত্বে ছিলেন সাবেক ওপেনার জাস্টিন ল্যাঙ্গার। পন্টিং ছাড়াও সে সিরিজে সহকারী কোচের দায়িত্ব পালন করেছিলেন সাবেক ফাস্ট বোলার জেসন গিলেস্পি।

টেস্টে ৪১ সেঞ্চুরি করা পন্টিংকে অস্ট্রেলীয় ক্রিকেটেরই অন্যতম সেরা তারকা ও ক্রিকেট মস্তিষ্ক হিসেবে মনে করা হয়। আইপিএলে মুম্বাই ইন্ডিয়ানসের কোচ হিসেবে পন্টিং বেশ কয়েক মৌসুম ধরেই কাজ করছেন। ২০১৫ সালে তাঁর অধীনেই আইপিএলের শিরোপা জেতে মুম্বাইয়ের ফ্র্যাঞ্চাইজিটি।

১৯৯৯ সালে ইংল্যান্ডের মাটিতে অস্ট্রেলিয়ার দ্বিতীয় বিশ্বকাপ জয়ে অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা ছিল পন্টিংয়ের। স্টিভ ওয়াহর অবসরের পর অস্ট্রেলিয়ার সর্বজয়ী দলের অধিনায়ক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। দেশকে জিতিয়েছেন দক্ষিণ আফ্রিকায় ২০০৩ ও ওয়েস্ট ইন্ডিজে ২০০৭ বিশ্বকাপের শিরোপা।

অস্ট্রেলিয়ার বর্তমান কোচ ড্যারেন লেম্যান ২০১৯ বিশ্বকাপের পর দায়িত্ব ছেড়ে দেবেন। পরবর্তী কোচ হিসেবে একজনের হাতে পুরো দলের দায়িত্ব কি তবে দেবে না অস্ট্রেলিয়া? পন্টিংকে শুধু টি-টোয়েন্টির কোচ বানানোর পরিকল্পনা তো সে রকম ইঙ্গিতই দিচ্ছে!

Leave a Reply