‘ফাঁস ঠেকাতে নৈবক্তিক প্রশ্ন তুলে দেয়ার চিন্তা’

পাবলিক পরীক্ষায় প্রশ্নপত্র ফাঁস রোধে পর্যায়ক্রেম নৈবক্তিক প্রশ্ন তুলে দেয়ার চিন্তা করছে সরকার। এমনটিই জানিয়েছেন শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী কাজী কেরামত আলী। গতকাল সোমবার রাজধানীর কৃষিবিদ ইনস্টিটিউটে অ্যাপটেক এবং এডিএন এডু সার্ভিস আয়োজিত ‘অ্যাপটেক শিক্ষা প্রশিক্ষণ সেবা পণ্যের’ উদ্ভাবন অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।
শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা চিন্তা-ভাবনা করছি যে, এমসিকিউ প্রশ্ন তুলে দেয়ার সিদ্ধান্ত পর্যায়ক্রমে নিবো যাতে, প্রশ্নপত্র ফাঁসের সম্ভাবনা থাকবে না।’
এছাড়াও বর্তমানে গৃহীত পদক্ষেপ সম্পর্কে তিনি বলেন, ‘প্রশ্নপত্র ফাঁসরোধে পরীক্ষার্থীদের নির্ধারিত সময়ের আধ ঘন্টা আগে শ্রেণিকক্ষে প্রবেশ করার ব্যবস্থা করা হয়েছে। এর ফলে শিক্ষার্থীদের কাছে পরীক্ষার পূর্ব মুহূর্তে প্রশ্নপত্র ফাঁসের কোন সুযোগ থাকছে না। সে জন্য এ ধরনের ঘটনা ঘটলেও এর প্রভাব পরীক্ষার্থীদের ওপর পড়ছে না।’
প্রশ্নপত্র ফাঁসের ঘটনা ঘটেছে সে বিষয়ে বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ নেয়ার বিষয়ে কাজী কেরামত আলী বলেছেন, ‘যারা প্রশ্নফাঁসের সাথে জড়িত তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে। কিভাবে তথ্য ও প্রযুক্তির মাধ্যমে প্রশ্নফাঁস হচ্ছে এ বিষয়ে বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ ও মতামত চাওয়া হচ্ছে।’
এডিএন এডু সার্ভিসেস এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক তপন কান্তি সরকারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ডাক ও টেলিযোগাযোগ সচিব শ্যাম সুন্দর শিকদার, তথ্য মন্ত্রণালয়ের প্রধান সচিব নাসির উদ্দিন আহমেদ, এটুআই প্রকল্প পরিচালক কবির বিন আনোয়ার, বাংলাদেশ হাইটেক পার্ক অথরিটির ব্যবস্থাপনা পরিচালক হোসনে আরা (সচিব), অ্যাপট্যাক এর প্রধান নির্বাহী অনিল পান্থ, আইডিয়া প্রকল্পের (জ্যেষ্ঠ উপদেষ্টা) হারুনুর রশিদ, কারিগরি শিক্ষা ব্যবস্থ্যার মহাপরিচালক অশোক কুমার বিশ্বাস এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রো-ভাইস চ্যান্সেলর (একাডেমিক) ড. নাসরিন আহমাদ।
সূএ: ইত্তেফাক

Leave a Reply