ফিলিপিন্সে ভূমিধসে নিহত ২১

ফিলিপিন্সে ভূমিধসে কমপক্ষে ২১ জন নিহত হয়েছে। এ ঘটনায় আরও কয়েক ডজন লোক নিখোঁজ রয়েছে। দেশটির পুলিশ জানিয়েছে, ধ্বংসের নিচে আটকা পড়া কেউ কেউ ম্যাসেজের মাধ্যমে সাহায্যের আবেদন করছে। খবর বিবিসির।

বৃহস্পতিবারের ওই ভূমিকম্পে চেবু প্রদেশের নাগায় দুটি গ্রাম মাটি চাপা পড়েছে।

টাইফুন মাংখুতের আঘাতে উত্তরাঞ্চলীয় ফিলিপিন্সে ৮০ জনের বেশি মানুষের মৃত্যু হওয়ার কয়েকদিন পর এই ভূমিধ্বসের ঘটনা ঘটলো। টাইফুন মাংখুত চেবু প্রদেশে সরাসরি আঘাত করেনি। কিন্তু ওই ঘূর্ণিঝড়ের আঘাতে ভারী বর্ষণে দেশজুড়ে ভূমিধসের ঝুঁকি বেড়ে যায়।

ভূমিধসে পাহাড়ের একটি অংশ ধসে পড়ে। পাহাড়ের ওই অংশে অস্থায়ী ঘরবাড়ি বানিয়ে সেখানে মানুষজন বসবাস করছিল।

সেখানকার একজন বাসিন্দা ক্রিস্টিয়া ভিল্লারবা বার্তা সংস্থা এপিকে জানিয়েছেন, এটা একটা ভূমিকম্পের মতো ছিল এবং তখন বজ্রধ্বনিও শোনা গিয়েছিল, বড় জোরালো শব্দ হয়েছিল।

তিনি বলেন, স্বামী ও সন্তানসহ আমরা সবাই সেখান থেকে পালিয়ে যাই।

ভিল্লারবা বলেন, আমাদের অনেক প্রতিবেশী সাহায্যের জন্য কান্না এবং চিৎকার করছিল। তিনি বলেন, অনেকেই ভূমিধসে আটকা পড়াদের সাহায্য করতে চেয়েছিল কিন্তু বাড়িগুলোতে অনেক মাটির নিচে চাপা পড়েছিল।

স্থানীয় গণমাধ্যম জানিয়েছে, বৃহস্পতিবার নাগার ৬০০-র বেশি পরিবার আশ্রয়কেন্দ্রে রাত কাটিয়েছে।

পুলিশ প্রধান রডেরিক গঞ্জালেস বলেছেন, চাপা পড়া বাড়ির ভেতর থেকে কয়েকজনকে উদ্ধার করা হয়েছে। তিনি বলেন, মাটির নিচে এখনও অনেকে বেঁচে আছেন। তাদের কেউ কেউ সাহায্যের জন্য ম্যাসেজ পাঠাতে সক্ষম হয়েছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *