বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশের ইতিহাসের মহানায়ক : আনিসুজ্জামান

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু হচ্ছেন বাংলাদেশের ইতিহাসের মহানায়ক। তিনি জাতির স্থপতি। তার নেতৃত্বে আমরা একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়েছি এবং জয়লাভ করেছি। যত চেষ্টাই হোক না কেনো বাংলাদেশের ইতিহাস থেকে বঙ্গবন্ধুকে বিচ্ছিন্ন করা যাবে না। বললেন বাংলা একাডেমির সভাপতি ও জাতীয় অধ্যাপক আনিসুজ্জামান।

(রোববার) সন্ধ্যায় বাংলা একাডেমিতে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৩তম শাহাদাতবার্ষিকী উপলক্ষে চার দিনব্যাপী কর্মসূচির উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সভাপতির ভাষণে এ কথা বলেন তিনি। আনিসুজ্জামান বলেন, বঙ্গবন্ধুর জীবন ও বাংলাদেশ একাকার হয়ে গেছে। জীবদ্দশায় তিনি যেমন আমাদের সংগ্রাম ও সংকল্পে প্রতীক ছিলেন, মৃত্যুর এতো বছর পরও তিনি তার সেই স্থানেই স্বমহিমায় বিরাজিত রয়েছেন।

কবি কামাল চৌধুরী বলেন, বঙ্গবন্ধু আমাদের ইতিহাসের প্রথম বাঙালি যার অধীনে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে জাতীয় ঐক্য, বাঙালি জাতিসত্তা প্রতিষ্ঠিত হয়েছে রাষ্ট্রীয় অবয়বে। অসাম্প্রদায়িক জাতিরাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার স্বপ্ন আগে অনেকেই দেখেছেন কিন্তু বাস্তবায়ন ঘটেছে বঙ্গবন্ধুর কালজয়ী নেতৃত্বে। বঙ্গবন্ধু স্পষ্ট করেছেন যে, তিনি একটি জাতিরাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা করতে চেয়েছিলেন বাঙালি জাতীয়তাবাদের ভিত্তিতে। স্বাগত ভাষণে মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেন বলেন, বঙ্গবন্ধু এবং বাংলাদেশ অবিচ্ছেদ্য ও সমার্থক। তার সাহসী ও দূরদর্শী নেতৃত্বে আমরা স্বাধীন ভূখণ্ড এবং লাল-সবুজের পতাকা অর্জন করেছি।

আজও তারই প্রেরণায় আমরা এগিয়ে চলেছি উন্নত সমৃদ্ধ বাংলাদেশের স্বপ্ন বাস্তবায়নে।  অনুষ্ঠানের শুরুতে জাতীয় অধ্যাপক আনিসুজ্জামান ফিতা কেটে বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে লেখা বিভিন্ন লেখকদের বইয়ের প্রদশর্নী উদ্বোধন করেন। প্রদর্শনীতে বঙ্গবন্ধুর লেখা তিনটি বই, অসমাপ্ত আত্মজীবনী, কারাগারের রোজনামচা ও প্রিজন ডায়েরিসসহ পাঁচ শতাধিক বই প্রদর্শিত হচ্ছে। এই প্রদর্শনী চলবে ১৫ আগস্ট পর্যন্ত।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *