বর্মী সেনাদের গণধর্ষণের শিকার রোহিঙ্গা নারীরা: জাতিসংঘ

মিয়ানমারের সেনাবাহিনীর সদস্যরা রাখাইন রাজ্যে অনেক রোহিঙ্গা নারীকে গ্যাং-রেপ বা গণধর্ষণ করেছে বলে জানিয়েছেন সহিংসতায় যৌননির্যাতন বিষয়ক জাতিসংঘ টিম।

প্রাণে বাঁচতে রাখাইন থেকে পালিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নেয়া এমন অসংখ্য নারীর সঙ্গে কথা বলে একথা জানিয়েছেন প্রতিনিধি দলের প্রধান জাতিসংঘ মহাসচিবের বিশেষ দূত প্রমীলা পাট্রিন।

জাতিসংঘের এই টিমের সদস্যরা গত দুই সপ্তাহ ধরে মিয়ানমার সীমান্তবর্তী কক্সবাজারের রোহিঙ্গা ক্যাম্পগুলো ঘুরেছেন। এবং সেখানে নির্যাতনের ক্ষত বয়ে বেড়ানো নারী ও কিশোরীদের দুর্বিষহ সেই ঘটনার লোমহর্ষক বর্ণনা শোনেন।

এরপর রবিবার রাজধানীর এক হোটেলে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে সফরের ফাইন্ডিংস এবং অবজারভেশন তুলে ধরেন আন্ডার সেক্রেটারি পদমর্যাদার জাতিসংঘ মহাসচিবের বিশেষ প্রতিনিধি প্রমীলা পাট্রিন।

তিনি বলেন, রোহিঙ্গা নারীদের মিয়ানমার সেনাবাহিনীর সদস্যরা গণধর্ষণসহ নানা রকম যৌন নির্যাতন করেছে। তাদের ওপর চালানো নিপীড়নের সেই ক্ষত এখনও তাদের শরীরে বিদ্যমান রয়েছে।

কোনো ধরনের সংকোচ না রেখে প্রমীলা পাট্রিন বলেন, সিরিজ এসব যৌন নির্যাতনের ঘটনার মূল হোতা মিয়ানমার আর্মি। তারা নিজেরা নারীদের ধর্ষণ করেছে ধারাবাহিকভাবে। অন্যদেরকেও এটি করতে হুকুম এবং উৎসাহ দিয়েছে।

Leave a Reply