বালিয়াকান্দিতে দুই শিক্ষার্থীকে পেটানো সাবেক সেই সেনা সদস্য গ্রেপ্তার

মোবাইল ফোন চুরির অভিযোগ এনে স্কুল পড়ুয়া দুই শিশু শিক্ষার্থীকে রশি দিয়ে বেঁধে বেদম মারপিটের ঘটনায় অবশেষে গ্রেপ্তার হয়েছেন অবসরপ্রাপ্ত সেনা সদস্য জুলফিকার আলী শেখ ও তার ছেলে সুমন শেখ।

রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দি উপজেলার নারুয়া ইউনিয়নের নারুয়া বাজারে ওই নির্যাতনের ঘটনা ঘটেছিলো। শনিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭ টার দিকে নারুয়া বাজার থেকে এদেরকে গ্রেপ্তার করে বালিয়াকান্দি থানা পুলিশ।

গ্রেফতারের বিষয়টি নিশ্চিত করে বালিয়াকান্দি থানার ওসি একেএম আজমল হুদা জানান, চুরির অভিযোগে যে দুই শিশুকে রশি দিয়ে বেঁধে শারীরিক নির্যাতন করা হয়েছে তাদেরই একজন বিজয়ের বাবা ফরিদ মোল্লা বাদী হয়ে শনিবার একটি মামলা দায়ের করে।

মামলার পরিপ্রেক্ষিতে আসামি দুজনকে নারুয়া বাজার থেকে গ্রেফতার করা হয়েছে। রোববার সকালে আসামিদেরকে রাজবাড়ী আদালতে পাঠানো হবে।

মামলার বাদী ফরিদ মোল্লা বলেন, আমার ছেলে নির্দোষ। মিথ্যা অপবাদ দিয়ে আসামিরা আমার ছেলে ও তার বন্ধুকে বেধড়ক মারপিট করেছে। আমি এদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানাচ্ছি।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার মাসুম রেজা বলেন, ঘটনাটি বিভিন্ন প্রিন্ট ও অনলাইন পোর্টালে প্রকাশিত হলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য থানার ওসিকে একটি চিঠি দেই। তারই পরিপ্রেক্ষিতে থানা পুলিশ তাৎক্ষণিকভাবে অভিযান চালিয়ে আসামিদেরকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়েছে।

শুক্রবার বিকালে মোবাইল ফোন চুরির অভিযোগে দুই শিশু শিক্ষার্থীকে নারুয়া বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের পূর্ব পাশের মাঝিপাড়া মন্দিরের সামনের একতলা ভবনে নিয়ে আসামিরা রশি দিয়ে বেঁধে বেধড়ক মারপিট করে।

মারপিটের শিকার ওই দুই শিশু হলো নারুয়া ইউনিয়নের বিলধামু গ্রামের পরিদ মোল্লার ছেলে বিজয় মোল্লা (১১)। সে বিলধামু আবুল কাসেম মন্ডল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৫ম শ্রেণীর শিক্ষার্থী। অপরজন একই গ্রামের সাদেক আলীর ছেলে আসিফ আলী (৮) । সে মধুপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ২য় শ্রেণির শিক্ষার্থী।