বিপিএলে সাকিবের দাপট চলছেই!

বল হাতে অসংখ্য টুর্নামেন্টে ছড়ি ঘোরাতে দেখা গেছে সাকিব আল হাসানকে। বাঁ হাতের স্পিন ঘূর্ণিতে কেড়ে নিয়েছেন প্রতিপক্ষ ব্যাটসম্যানের আয়েশ। ফের একই রূপে দেখা গেল তাকে। এবারের বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে (বিপিএল) ঝলক দেখিয়ে যাচ্ছেন বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার। প্রায় প্রতি ম্যাচেই দুর্দান্ত বোলিং করে প্রতিপক্ষ দলের ব্যাটসম্যানদের ঘায়েল করছেন বাংলাদেশ ক্রিকেটের এই উজ্জ্বল নক্ষত্র। ফলশ্রুতিতে বিপিএলের পঞ্চম আসরে বাঘা বাঘা দেশি-বিদেশি বোলারদের ভিড়েও সর্বোচ্চ উইকেট শিকারী তিনি।

এবারের বিপিএলে ঢাকা ডায়নামাইটসের হয়ে খেলছেন সাকিব। মাঠে নেমেছেন ১১ ম্যাচে। প্রতি ম্যাচেই বল করেছেন, রান দিয়েছেন মাত্র ২৪৬। ২৩৩ বার (৩৮ দশমিক ৫ ওভার) হাত ঘুরিয়ে শিকার করেছেন ১৯ উইকেট। মেডেন ২ ওভার, গড় ১২ দশমিক ৯৪ ও ইকোনমি ৬ দশমিক ৩৩। ৫ উইকেট পেয়েছেন একবার, ৪ উইকেটও একবার। সেরা ১৬ রানে ৫ উইকেট।

দেশের ঘরোয়া জনপ্রিয় এই টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্টের এবারের আসরে শীর্ষ ৫ উইকেট শিকারির তালিকায় সাকিবের পরের স্থানে আছেন খুলনা টাইটানসের আবু জায়েদ। ১১ ম্যাচে তার শিকার ১৯ দশমিক ১১ গড়ে ১৮ উইকেট। এই উঠতি তারকার সেরা ৩৫ রানে ৪ উইকেট।

এবারের বিপিএলে উইকেট শিকারে বাংলাদেশি বোলারদের জয়জয়কার। তালিকার তৃতীয় স্থানেও আছেন টাইগার বোলার। ১১ ম্যাচ খেলে তার কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানস তারকা মোহাম্মদ সাইফুদ্দিনের শিকার ১৮ দশমিক ৩৩ গড়ে ১৫ উইকেট। বাংলাদেশ সম্ভাবনাময় এই পেস অলরাউন্ডারের সেরা ২২ রানে ৩ উইকেট।

বিপিএল এলেই উইকেট পাওয়ার কি মন্ত্র যেন পেয়ে যান আবু হায়দার রনি। এবার তিনি খেলছেন ঢাকা ডায়নামাইটসের হয়ে। বরাবরের মতো পঞ্চম আসরেও আলো ছড়িয়ে যাচ্ছেন এই বাঁহাতি পেসার। সঙ্গত কারণে তালিকার চতুর্থ স্থানে আছেন সম্ভাবনাময় এই বোলার। তার শিকার ১৮ দশমিক ৫০ গড়ে ১৪ উইকেট, সেরা ১১ রানে ৩ উইকেট।

শীর্ষ ৫’র শেষ স্থানে আছেন চিটাগাং ভাইকিংসের তাসকিন আহমেদ। সমানসংখ্যক ম্যাচে ২৩ দশমিক ৯২ গড়ে তার শিকার ১৪ উইকেট। ডানহাতি এই পেসারের সেরা ৩১ রানে ৩ উইকেট। তালিকার ওপরের চার বোলারই নিজ নিজ দলকে শেষ চারে তুলতে পারলেও পারেননি তিনি।

Leave a Reply