বিল্ডিং কোড না মানলে নেয়া হবে ব্যবস্থা

রাজধানীর পুরান ঢাকা, বনানী ও গুলশানে অগ্নিকাণ্ডের পর নড়েচড়ে বসেছে দেশের বিভিন্ন জেলা প্রশাসন। অগ্নিনিরাপত্তা ব্যবস্থা ও নকশা না মেনে গড়ে ওঠা বহুতল ভবন খুঁজতে মাঠে নেমেছে কর্তৃপক্ষ। এক্ষেত্রে কোনো ছাড় দেয়া হবে না বলে জানিয়েছেন কর্মকর্তারা।

বহুতল ভবন নির্মাণের ক্ষেত্রে পৌরসভা থেকে নকশা অনুমোদনসহ ফায়ার সার্ভিস ও পরিবেশ অধিদপ্তরের ছাড়পত্র নেয়া বাধ্যতামূলক। তবে এসবের তোয়াক্কা না করেই সারা দেশে গড়ে উঠছে বহুতল আবাসিক ও বাণিজ্যিক ভবন।

ফরিদপুরে ৭৫ থেকে ৮০ ভাগ ভবনেরই নেই অনুমোদনের ছাড়পত্র। এজন্য পৌরসভার উদাসীনতাকে দায়ী করছে ফায়ার সার্ভিস। তবে পৌর কর্তৃপক্ষের দাবি, অতীতে কিছু শিথিলতা থাকলেও এখন তাদের অবস্থান কঠোর।

কুষ্টিয়ায় শতাধিক বহুতল ভবনের মধ্যে নিয়ম মেনে তৈরি হয়েছে মাত্র ৪টি। পৌর কর্তৃপক্ষ অনুমোদন দিলেও পর্যাপ্ত অগ্নিনির্বাপণ ব্যবস্থা না থাকায় ছাড়পত্র দেয়নি ফায়ার সার্ভিস। ভবন তৈরিতে অনিয়ম তদন্তে মাঠে নেমেছে জেলা প্রশাসন।

এদিকে, রংপুরে বেশিরভাগ বহুতল ভবন নির্মাণেই বিল্ডিং কোড মানা হচ্ছে না। এরই মধ্যে ৪০টি বহুতল ভবন এবং ২০টি মার্কেট ঝুঁকিপূর্ণ চিহ্নিত করে ব্যবস্থা নেয়ার কথা জানিয়েছে জেলা প্রশাসন।