বিষন্নতা কাটাবেন যেভাবে

নানা কারণে মানুষ অবসাদগ্রস্ত হতে পারে। একঘেয়ে জীবন, মানিয়ে নিতে না পারা কিংবা হতাশার সঙ্গে লড়াই করতে করতে জীবনে কখনো না কখনো বিষণ্নতা আসে প্রায় সকলেরই। বিষণ্নতা দীর্ঘস্থায়ী হলে জীবন দুর্বিষহ হয়ে ওঠে। এটি কাটাতে কিছু অভ্যাস অনুসরণ করতে পারেন। যেমন-

১. রাতে অবশ্যই ৮ ঘণ্টা ঘুমান। পারলে রোজ একই সময়ে ঘুমাতে যান। ঘুম কম হলে মনে বিষণ্নতা বাসা বাঁধে।
২. নিয়মিত শরীরচর্চা করুন। ভারী ব্যায়াম করতে ইচ্ছা না হলে কিছুক্ষণ স্কিপিং করুন বা হাঁটুন। এটি বিষণ্নতা কাটাতে সাহায্য করবে।
৩. প্রতিদিন পর্যাপ্ত পানি পান করুন। এতে মস্তিষ্কে সঠিকভাবে অক্সিজেন পৌঁছায়। মস্তিষ্কে অক্সিজেনের ঘাটতি হলে অবসাদ তৈরি হয়।
৪. জীবনে রুটিন মেনে চলুন। সময় মেনে চললে জীবনে একটা শৃঙ্খলা থাকে। এতে বিষণ্নতায় ভোগার অবকাশ কম থাকে।
৫. অনেক সময় মনের মধ্যে রাগ, দুঃখ, অভিমান জমতে থাকে যা আমরা কাউকে বলতে পারি না। জমতে জমতে এক সময় বিষন্নতা চেপে ধরে আমাদের। লেখার অভ্যাস করুন। নিয়মিত ডায়রিতে না বলা অনুভূতি লিখে রাখুন।
৬. আপনার ভালো লাগে এমন কোনো শখের কাজ বেছে নিন। ছবি আঁকা, রান্না করা,গান শোনা , বাগান করা- যেটা করতে ভালো লাগে তার মধ্যে নিজেকে ডুবিয়ে রাখুন। এতে মস্তিষ্কে সিরোটোনিনের ক্ষরণ বাড়বে। তখন মন ভালো থাকবে, অবসাদ কাটিয়ে উঠতে পারবেন সহজে।
৭. প্রতিদিন কিছুটা সময় নিজের সঙ্গে কাটান। একা বসে ধ্যান করুন বা ডিপ ব্রিদিং করুন। এতে মনসংযোগ বাড়বে, মন শান্ত হবে, অবসাদ কাটবে।
৮. একাকিত্ব থেকে বিষণ্নতা বাড়ে। সব কিছু নিজের মধ্যে চেপে না রেখে কারো সঙ্গে শেয়ার করুন। লোকজনের সঙ্গে মিশলে, বন্ধুত্ব করলে বিষণ্নতা কাছে ঘেষতে পারবে না।