বেকায়দায় পড়ে হার মানল রবি

বেকায়দায় পড়ে অবশেষে ঘায়েল হচ্ছে দেশের বেসরকারি মোবাইলফোন অপারেটর কোম্পানি রবি। ফাঁকি দেওয়া প্রায় ১৯ কোটি টাকার রাজস্ব পরিশোধে ‘অঙ্গীকারনামা’ দিয়েছে কোম্পানিটি।

আর ওই প্রতিশ্রুতিতে প্রথমবারের মতো পার পেয়ে যাচ্ছে দেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম এই অপারেটর। জাতীয় রাজস্ব বোর্ড- এনবিআরের বৃহৎ করদাতা ইউনিট প্রতিষ্ঠানটির ব্যাংক হিসাব খুলে দিতে সব ব্যাংককে চিঠি দিয়েছে।

এর আগে গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে এলটিইউ এর সিদ্ধান্ত স্থগিত করে রবির ব্যাংক হিসাব জব্দে হাইকোর্ট যে আদেশ দিয়েছিলেন, তা স্থগিত করেন আপিল বিভাগ।

সব ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালককে দেয়া চিঠিতে বলা হয়, বৃহৎ করদাতা ইউনিট, মূসক দপ্তরের উক্ত পত্রের মাধ্যমে রবি আজিয়াটা লিমিটেড এর ব্যাংক হিসাব অপরিচালনযোগ্য (ফ্রিজ) করার জন্য পত্র প্রেরণ করা হয়। অতঃপর প্রতিষ্ঠান এ মর্মে অঙ্গিকারনামা দেন যে, অবলিম্বে সরকারি পাওনা পরিশোধ করবে। এমতাবস্থায়, প্রতিষ্ঠানটির ব্যাংক হিসাব পরিচালনযোগ্য (আনফ্রিজ) করার অনুরোধ করা হলো।

গত ২৬ ফেব্রুয়ারি ১৮ কোটি ৭২ লাখ ৮৮ হাজার ৩২ টাকা ৭০ পয়সা মূসক ও সম্পূরক শুল্ক ফাঁকি দেওয়ার অভিযোগে এনবিআর রবির ব্যাংক হিসাব তিন কার্যদিবসের জন্য জব্দ রাখতে দেশের সব ব্যাংককে চিঠি পাঠায়।

এই চিঠি ও সংশ্লিষ্ট আইনের বিধান চ্যালেঞ্জ করে ২৭ ফেব্রুয়ারি রিট করে রবি। প্রাথমিক শুনানি নিয়ে হাইকোর্টের দ্বৈত বেঞ্চ রুল দেওয়ার পাশাপাশি ওই চিঠির কার্যকারিতা স্থগিত করেন।

এতে স্থগিতাদেশ চেয়ে ২৮ ফেব্রুয়ারি বুধবার চেম্বার বিচারপতির আদালতে আবেদন করে রাষ্ট্রপক্ষ। এর পরিপ্রেক্ষিতে চেম্বার বিচারপতি রাষ্ট্রপক্ষের করা আবেদনটি আজ আপিল বিভাগের নিয়মিত বেঞ্চে শুনানির জন্য পাঠান। এর ধারাবাহিকতায় আবেদনের ওপর শুনানি হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *