ভারতের মাটিতে অজিদের সিরিজ জয়

পাঁচ ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজের পঞ্চম ও শেষ ম্যাচে বিরাট কোহলি বনাম অ্যারন ফিঞ্চের দ্বৈরথের ফল ছিল ২-২। দিল্লির ফিরোজ শাহ কোটলায় উসমান খাজার সেঞ্চুরিতে ভর করে অস্ট্রেলিয়া ২৭২ রান লক্ষ্য দিয়েছিল ভারতকে। সিরিজটি জয়ের জন্য ভারতের প্রয়োজন ছিল ২৭৩ রান। দু’দলের কাছেই এটা ডু-অর-ডাই ম্যাচ এই ম্যাচে যে জয় পাবে সেই দলটি সিরিজটি নিজেদের করে নেবে। তবে শেষ হাসিটা হেসেছে সফরকারীরাই। টিম ইন্ডিয়াকে ৩৩ রানে হারিয়ে ৩-২ এ জিতে নিয়েছে ওয়ানডে সিরিজটি। গেল এক মাস ধরে ভারতের প্রতিবেশী দেশ পাকিস্তানের সঙ্গে তীব্র রাজনৈতিক সংকট চলছিল ঠিক এমন সময় পাকিস্তানি বংশোদ্ভূত উসমান খাজার কাছেই সিরিজটি খোয়াতে হলো ভারতীয়দের।

বুধবার বিশ্বকাপের আগে শেষবার নীল জার্সিতে নেমেছিল রবি শাস্ত্রীর শিষ্যরা। এরপর আইপিএল খেলে বিরাট কোহলির দল ধরবে ইংল্যান্ডের বিমান। তবে ক্রিকেটের সর্বোচ্চ আসরে যাওয়ার আগে শেষটা ভালো হয়নি দুই বারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নদের।

সিরিজের প্রথম দুই ম্যাচ জিতে নেয়ার পর তৃতীয়টিতে সিরিজ জয়ের লক্ষ্যে নেমে হারের লজ্জা নিয়ে দেখতে হয়েছিল স্বাগতিকদের। চতুর্থ ম্যাচে দুই ওপেনারের দাপটে রানের পাহাড়ের সামনে দাঁড় করিয়েও অস্ট্রেলিয়াকে আটকানো যায়নি।

অন্যদিকে বিশ্ব ক্রিকেটে নিজেদের সুনাম ফেরানো সুযোগটি লুফে নিয়েছে অস্ট্রেলিয়া দল।

ভারতের ওপেনার রোহিত শর্মার হাফসেঞ্চুরি তুলে নিলেও পুরো টপ অর্ডার ব্যর্থ হয় এদিন। শিখর ধাওয়ান (১২), বিরাট (২০), ঋষভ পন্থ (১৬), বিজয় শঙ্কর (১৬), রবীন্দ্র জাদেজা (০) কেউই দলের হাল ধরতে পারেননি।

১৩২ রানে ৬ উইকেট চলে গেলে লোয়ার মিডল অর্ডারে কেদার জাদব, ভুবনেশ্বর কুমার ৯১ রানের জুটি গড়ে জয়ের আশা দেখান। কেদার ফেরেন ৪৪ রান করে। ভুবেনেশ্বর আউট হন ৪৬ রানের ইনিংস খেলে।

শেষ দিকে মোহম্মদ শামি ৩ ও কুলদিপ জাদব ৯ রান করলেও জয়ের জন্য তা যথেষ্ট ছিল না। শেষ পর্যন্ত যশপ্রীত বুমরাহ ৪ বলে ১ রান করে অপরাজিত ছিলেন। এতে শেষ পর্যন্ত ৫০ ওভারে ২৩৭ রান তুলে অলআউট হয় ভারতীয় দল।

অস্ট্রেলিয়ার হয়ে তিনটি উইকেট শিকার করেন অ্যাডাম জাম্পা। মার্কাস স্টইনিস, ঝাই রিচার্ডসন, প্যাট কামিন্স দুটি করে উইকেট তুলে নেন।

ম্যাচ সেরা হয়েছেন ১০৬ বলে ১০০ রান করা উসমান খাজা। সিরিজের পাঁচ ম্যাচে দুই সেঞ্চুরি ও দুই হাফসেঞ্চুরি করে ৩৮৩ রান করে সিরিজ সেরাও হয়েছেন বাম-হাতি এই ওপেনার।

অস্ট্রেলিয়ার ওপেনার উসমান খাজা
১৯৮৬ সালে পাকিস্তানের ইসলামাবাদে জন্ম নেন খাজা। এর পর পরিবারের সঙ্গে পাঁচ বছর বয়সে অস্ট্রেলিয়ায় পাড়ি জমান তিনি। ২০১১ সালে অস্ট্রেলিয়া টেস্ট দলে প্রথম মুসলিম ক্রিকেটার হিসেবে অভিষেক হয় তার। দু্ই বছর পর ওয়ানডেতে অভিষেক হলেও দলে ছিলেন অনিয়মিত। চলতি সফরে সীমিত ওভারে জাতীয় দলে সুযোগ পেয়েই বাজিমাত করেন খাজা।