মরদেহ আনতে নিউজিল্যান্ড যেতে পারবেন প্রতি পরিবারের একজন

নিউজিল্যন্ডের ক্রাইস্টচার্চে মসজিদে হামলায় নিহত বাংলাদেশিদের মরদেহ ফিরিয়ে আনতে পরিবার প্রতি ঘনিষ্ঠ একজনকে নিউজিল্যান্ড নিয়ে যাবে দেশটির সরকার।

রোববার বার্তা সংস্থা ইউএনবিকে এ তথ্য জানান পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম। নিহতের সংখ্যা ছয়জন পর্যন্ত বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেন তিনি।

প্রতিমন্ত্রী জানান, নিউজিল্যান্ড সরকার বাংলাদেশকে জানিয়েছে, বাংলাদেশিদের মরদেহ ফিরিয়ে আনতে প্রত্যেকের পরিবারের ঘনিষ্ঠ একজনকে নিউজিল্যান্ড নিয়ে যাবে তারা। তাদের কাছে নিহতদের মরদেহ হস্তান্তর করবে।

শাহরিয়ার বলেন, নিহত ড. আব্দুস সামাদের পরিবার তাকে নিউজিল্যান্ডে কবর দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ও নিহতের বড় ছেলে বাংলাদেশ থেকে সেখানে যাবে। তবে নিহত হোসনে আরাকে নিউজিল্যান্ডে কবর দেয়া হবে নাকি মরদেহ দেশে ফিরিয়ে আনা হবে সে বিষয়ে এখনও সিদ্ধান্ত হয়নি।

গত শুক্রবার স্থানীয় সময় বেলা দেড়টার দিকে জুমার নামাজের সময় ক্রাইস্টচার্চে দুটি মসজিদে বর্ণবাদী এক যুবকের নৃশংস হামলায় অন্তত ৫০ জন নিহত ও ৪৮ জন আহত হন।

ওই হামলার সময় আল নুর নামের মসজিদটিতে নামাজ পড়তে গিয়ে অল্পের জন্য বেঁচে ফেলেন সেখানে তখন সফররত বাংলাদেশ দলের ক্রিকেটাররা।