মশার কামড় থেকে নিজেকে সুরক্ষিত রাখার ৫ টিপস

বসন্তের এই মাতাল সমীরণে ফুলের গন্ধের পাশাপাশি রাজধানীতে বাসা বেঁধেছে রক্তচোষা মশার দলও। গেল বছর চিকসগুনিয়ার প্রকোপে নাকাল নগরবাসীকে এরইমধ্যে মশাবাহিত রোগ নিয়ে সতর্ক করে দিয়েছেন দক্ষিণের মেয়র সাঈদ খোকন। তবে অহেতুক ভয়ে মরার আগেই নিয়ে ফেলুন সতর্কতামূলক এই ব্যবস্থাগুলো। মশার বিরুদ্ধে যুদ্ধে এগুলোই আপনাকে ও আপনার পরিবারকে রাখবে সুরক্ষিত।

১. নীমের তেল ব্যবহার

বাংলার অতি পরিচিত ভেষজ নীম মশা তাড়াতেও খুবই উপকারী। ঘরের পাশে নীমের গাছ থাকলে তার বাতাস মশা তাড়াতে করবে সাহায্য। এছাড়াও নীমের তেল কয়েক ফোঁটা জলপাইয়ের তেলের সঙ্গে মিশিয়ে শরীরে মাখলে মশা কোনোভাবেই পারবে না আপনার শরীরে হুল ফোঁটাতে। ঘিয়ের প্রদীপের মতো নীমের তেলের প্রদীপ ঘরে কোণে রেখে দিলে ঘরও থাকবে মশামুক্ত।

২. ল্যাভেন্ডার 

মশাকে দূরে রাখার আরও একটি ব্রক্ষ্মাস্ত্র হলো ল্যাভেন্ডার। হালকা বেগুনি এই ফুলের সুবাস যেমন সুন্দর, এই গাছ তেমনি মশা তাড়াতেও দারুণ উপকারী। ল্যাভেন্ডার তেলও নীমের তেলের মতোই বাঁজাবে আপনাকে মশার কামড় থেকে।

৩. কয়েল নয়, ধূপ

আধুনিক সময়ের অনেক কয়েল জ্বালালে চোখ জ্বলে, মাথা ঘোরে এমনকী শ্বাসকষ্টও হয় অনেকের। এই অস্বাস্থ্যকর পরিবেশ থেকে মুক্তি পেতে ব্যবহার করুন ধূপ। আগের দিনের এই উপায়টি এখন অনেকে ভুলে গেলেও মশা তাড়াতে দারুণ কার্যকরী এই ধূপ।

৪. মশারোধী পানীয়

মশার আক্রমণ আপনি রুখতে পারেন শরীরের ভেতর থেকেও। অ্যাপেল সাইডার ভিনেগার এখন পাওয়া যায় প্রতিটি সুপারশপেও। এই ভিনেগার দুই চামচ এক গ্লাস পানিতে গুলে খেয়ে ফেলুন, দেখবেন মশা কাছেও ঘেঁষবে না।

৫. বাড়িঘর রাখন পরিচ্ছন্ন

ঘরের কোথাও জমতে দেয়া যাবে না পানি। চেষ্টা করুন, বাড়ির আশপাশের ময়লা প্রতিনিয়ত পরিস্কার করতে। বিশেষ করে পানি জমে থাকতে পারে, এমন জায়গার প্রতি নজর দিন। কারণ, এসব স্থানই মশার জন্মস্থান।

Leave a Reply