মশার কারণে ফ্লাইট বিলম্ব!

ঢাকার হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে মশার কারণে বিদেশগামী একটি ফ্লাইট প্রায় দুই ঘণ্টা বিলম্বে ছাড়া হয়েছে।

বৃহস্পতিবার গভীর রাতে বিমানবন্দর থেকে মালয়েশিয়ান এয়ারলাইন্সের একটি ফ্লাইট উড্ডয়নের সময় অসংখ্য মশা ঢুকে পড়ে। এসময় যাত্রীরা চিৎকার শুরু করলে বিমানবন্দরের রানওয়ের মুখে ফ্লাইট থামিয়ে দেন পাইলট। এরপর প্রায় দুই ঘণ্টা ধরে কেবিনক্রুরা মশা নিধন করার পর ফের ফ্লাইটটি রওনা দেয়।

বিমানবন্দর সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে। মশার কারণে ফ্লাইট বিলম্বে ছাড়ার ঘটনা নজিরবিহীন বলে জানিয়েছেন সংশ্নিষ্টরা।

বিমানবন্দর সূত্রে জানা গেছে, বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ১২টায় বিমানবন্দরের আলফা-২ বে এরিয়া থেকে মালয়েশিয়ান এয়ারলাইন্সের (এমএইচ ১৯৭) ফ্লাইটটি যাত্রীদের নিয়ে উড্ডয়নের জন্য রানওয়ের দিকে এগিয়ে যাচ্ছিল। বোয়িং-৭৩৭ মডেলের উড়োজাহাজটিতে প্রায় ১৫০ জন যাত্রী ওঠার সময় মশাও ঢুকে পড়ে। মশার উৎপাতে যাত্রীরা বিরক্ত হয়ে অভিযোগ করেন কেবিনক্রুদের কাছে। বাধ্য হয়ে রানওয়ের পরিবর্তে ফের বে এরিয়ায় উড়োজাহাজটি ফিরিয়ে আনতে বাধ্য হন বৈমানিক। এরপর মশা নিধন চলে প্রায় দুই ঘণ্টা। রাত পৌনে ৩টার দিকে ফ্লাইটটি ছেড়ে যায়। এ ঘটনায় বিব্রতকর অবস্থায় পড়েন এয়ারলাইন্সটির কর্মীরা।

অন্য এয়ারলাইন্সগুলোকেও মশার কারণে বিপত্তিতে পড়তে হয়েছে বলে জানা গেছে।

এ ব্যাপারে মালয়েশিয়ান এয়ারলাইন্সের স্টেশন ম্যানেজার আবদুল আজিজ সাংবাদিকদের বলেন, ‘মশার কারণে মালয়েশিয়াগামী ফ্লাইটটি যথাসময়ে ছেড়ে যেতে পারেনি। বিমানবন্দর রানওয়ের বে এরিয়া থেকে যাত্রী ওঠানোর সময় উড়োজাহাজে মশা ঢুকে পড়ে। যাত্রীরা মশার উৎপাতে বিরক্ত হন। বাধ্য হয়ে মশা নিধন করে ফ্লাইটটি ছেড়ে যায়।’

এ প্রসঙ্গে হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের পরিচালক গ্রুপ ক্যাপ্টেন কাজী ইকবাল করিম বলেন, মশার কারণে বিমানবন্দর থেকে মালয়েশিয়াগামী ফ্লাইট দুই ঘণ্টা দেরিতে ছেড়ে যাওয়ার বিষয়টি তার জানা নেই।

তিনি আরও বলেন, ‘বিমানবন্দরে সব ধরনের ঘটনা আমাকে অবহিত করা হলেও মালয়েশিয়ান ফ্লাইটে মশার ঘটনা অবহিত করা হয়নি।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *