‘মুসলিম হওয়ার যোগ্যতা তোমার নেই’

মুসলিম কন্যা মানেই পর্দার আড়ালে থমকে থাকা জীবন। এর বাইরে নৈব নৈব চ! তাহলেই খোয়ালে তুমি ধর্ম। আসলে কিছু মানুষের মতে, ইসলাম ধর্ম মেয়েদের বোরখার আড়ালে থাকার নির্দেষ দেয়। আর সেখানে হিজাব তো দূরের কথা। বিকিনি পরে হাজির সারা খান। তাতেই রা রা করে উঠেছে রক্ষণশীল সমাজ। ‘মুসলিম কন্যা হয়ে কেন এমন পোশাক পড়েছ?’ ‘তোমার মুসলিম হওয়ার যোগ্যতা নেই’। একের পর এক মন্তব্যে জেরবার টেলিকুইন।

টাইট শিডিউলের মাঝে ছুটি নিয়ে কিছুদিনের জন্য ঘুরতে গিয়েছিলেন অভিনেত্রী। ডেস্টিনেশন সমুদ্র সেখানের বীচে বিকিনি পরে গিয়েছিলেন নায়িকা। আর সেই ছবি ইনস্টাগ্রামে পোস্ট করতেই হল কাল। কেউ কেউ নায়িকার ফিগারের তারিফ করলেও। বেশির ভাগই আঙুল তুলেছেন তাঁর পোশাকের দিকে।

ছবি: ইনস্টাগ্রামের সৌজন্যে

প্রসঙ্গত মাস কয়েক আগে, ইনস্টা অ্যালবামে নগ্ন অবস্থায় দেখা যায় সারা ও তাঁর বোনকে। চোখের নিমেশে তা ভাইরাল হয়ে পড়ে। তবে কিছু সময় পর অবশ্য আয়রা সে ভিডিও ডিলিট করে দেন। একটি ইভেন্টে অংশগ্রহণ করার জন্য বোন আয়রা খানের সঙ্গে শ্রীলঙ্কায় রয়েছেন সারা। চুটিয়ে মজা করছেন দু’বোন। আর সেসব মুহূর্ত আপলোড করছেন সোশ্যাল মিডিয়ায়। তারই মাঝে দু’বোনের নগ্ন ভিডিও পোস্ট হয়ে যায়।

 

দুই বোনের কথায়, গোটা ব্যাপারটাই নাকি ঘটেছে তাঁদের অজান্তে। তাঁরা নাকি কেউই বুঝতে পারেননি ব্যক্তিগত মুহূর্ত ছড়িয়ে পড়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। তাই ব্যাপারটা জানান সঙ্গে সঙ্গে তাঁরা ভিডিওটি ডিলিট করে দেন। তবে তত ক্ষণে যা ক্ষতি হওয়ার হয়ে গিয়েছে। ওয়েব অডিয়েন্সের একটা অংশ ওই ভিডিও থেকে সারার নগ্ন ছবির স্ক্রিনশটও নিয়ে নেন।

ছবি: ইনস্টাগ্রামের সৌজন্যে

গোটা ঘটনার পর নায়িকার বক্তব্য, “কী হয়েছে আমি জানি না। সব কিছু গন্ডগোল হয়েছে। আমার বোন মজা করে একটা ভিডিও তুলেছিল। ভুল করে আপলোড হওয়ার পর ও ডিলিটও করে দেয়। ও একটু মদ খেয়েছিল। আমরা একটু মজাও করছিলাম। আমি শুধু বলতে চাই, পৃথিবী যে ভাবে এগিয়ে যাচ্ছে মাঝেমধ্যে প্রযুক্তিগত সমস্যা হতে পারে। আমাদের সকলেরই সতর্ক হওয়া উচিত।”

ছবি: ইনস্টাগ্রামের সৌজন্যে

অভিনেত্রীর এই কথায় শুরু হয়েছে নানান সমালোচনা। অনেকে প্রশ্ন করছেন মদ্যপ অবস্থায় ব্যক্তিগত মুহূর্ত নিয়ে আয়রা এত অসাবধান কী ভাবে হলেন? নাকি জনপ্রিয়তা পাওয়ার এ এক অন্য মাধ্যম, প্রশ্ন উঠছে তা নিয়েও। কারন আজকাল শরীর দেখিয়ে লাইমলাইটে চলে আসছেন অভিনেত্রীকে। কাজ না থাকলেও খবরের শিরোনাম জুড়ে থাকছেন তাঁরা।
তবে এবার এখনও কোনও রকম মন্তব্য করেনিনি তিনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *