রংপুরের হয়ে মাঠ কাঁপাবে গেইল-ম্যাককুলাম!

আন্দ্রে ফ্লেচার, এভিন লুইস, শহীদ আফ্রিদি, উপুল থারাঙ্গারা প্রায় প্রতি ম্যাচে রানের ফুলঝুড়ি ছোটাচ্ছেন। প্রতি ম্যাচেই ওপেন করতে নেমে এসব বিদেশি ক্রিকেটার সাফল্য এনে দিচ্ছেন সিলেট সিক্সার্স, ঢাকা ডায়নামাইটসদের।

অথচ শিরোপা প্রত্যাশী দল গড়েও প্রত্যাশিত ফল পাচ্ছে না রংপুর রাইডার্স। বসুন্ধরা গ্রুপের পৃষ্ঠপোষকতায় রংপুর শিরোপা প্রত্যাশী দল গড়েছে। মাশরাফি বিন মর্তুজাকে দলনায়ক এবং কোচ হিসেবে নিয়োগ দিয়েছে টম মুডিকে। প্রথম ম্যাচে জয় পেলেও পরের দুই ম্যাচে কেটে গেছে সুর। ওপেনারদের ব্যর্থতায় তিন ম্যাচে দুই হারে পিছিয়ে পড়েছে কিছুটা। দলটির টার্গেট ‘সুপার ফোর’। এখনো লম্বা জার্নি। সেই জার্নিতে টিকে থাকতে এবার আনছে টি-২০ ক্রিকেটের দুই ‘বিস্ফোরক’ ব্যাটসম্যান ওয়েস্ট ইন্ডিজের ক্রিস গেইল ও নিউজিল্যান্ডের ব্রেন্ডন ম্যাককুলামকে। সবকিছু ঠিক থাকলে দুই হার্ডহিটার ঢাকায় পা রাখছেন ১৬ নভেম্বর।
দুজনে চার-ছক্কার ফুলঝুড়ি ছোটাতে মাঠে নামবেন শনিবার কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের বিপক্ষে।

ক্রিকেট বিশ্বের বড় তারকা গেইল ও ম্যাককুলাম। বিশেষ করে গেইল বিপিএলের পরিচিত মুখ। বরিশাল বার্নার্স ও ঢাকা গ্ল্যাডিয়টর্সের পক্ষে মাঠ মাতিয়েছেন টি-২০ ক্রিকেটের ফেরিওয়ালা। এবার মাঠ মাতাতে আসছেন রংপুর রাইডার্সের পক্ষে। ম্যাককুলামও হার্ড হিটার। এবারই প্রথম আসছেন তিনি বিপিএল খেলতে। দুই বিধ্বংসী ব্যাটসম্যানের ছোঁয়ায় বদলে যাবে বিশ্বাস দলটির প্রধান নির্বাহী ইশতিয়াক সাদেকের, ‘আগামী দুই-তিনদিনের মধ্যেই ঢাকায় চলে আসছেন ক্রিস গেইল ও ব্রেন্ডন ম্যাককুলাম। সঙ্গে আসছে শ্রীলঙ্কার কুশল পেরেরাও। উদ্বোধনী জুটি রান করছে না। দলের উপর চাপ পড়ছে। ওরা যোগ দিল আশা করছি টপ অর্ডার রান করবে এবং দলের সাফল্য দেখতে পাব। ’ দুই ক্রিকেট দানবের উপস্থিতি গোটা দলকে উদ্দীপ্ত করবে বলে বিশ্বাস কোচ মুডিরও, ‘দুই তারকার উপস্থিতি গোটা দলকে উজ্জীবিত করবে। দলে প্রাণের সঞ্চার করবে। টি-২০ ক্রিকেটে রানের চাকা সচল রাখতে স্ট্রোকের বিকল্প নেই। ’ দুই ক্রিকেটারের উপর গোটা দল তাকিয়ে আছে কোনো সন্দেহ নেই।

সিলেটে প্রথম ম্যাচে রংপুর রাইডার্স ৬ উইকেট হারিয়েছিল রাজশাহী কিংসকে। ওই ম্যাচে ব্যর্থ হয়েছিলেন দুই ওপেনার জনসন চার্লস (৯) ও এডাম লিথ (০)। দলকে জয় উপহার দিয়েছিলেন মোহাম্মদ মিথুন (৪৬), শাহরিয়ার নাফিস( ৩৫) ও রবি বোপারা(৩৯*)। পরের ম্যাচে চিটাগং কিংসের কাছে হেরে যায় ১১ রানে। ওই ম্যাচেও ব্যর্থ ছিলেন দুই ওপেনার চার্লস (২) ও জিয়াউর (১১)। এবার রান করেন ইংলিশ ক্রিকেটার বোপার (৩৮), মিথুন (২৩) ও শাহরিয়ার (২৬)। মিরপুর স্টেডিয়ামে তৃতীয় ম্যাচে ৮ উইকেটে হেরে যায় রাজশাহীর কাছে। এবারও ব্যর্থ হন দুই ওপেনার। তিন ম্যাচে চার্লসের ব্যাট থেকে বেরিয়েছে সাকল্যে ১২ এবং লিথের ব্যাট থেকে দুই ম্যাচে ৪। ওপেনারদের এই ব্যর্থতা সামলানোই এখন রংপুরের লক্ষ্য। তৃতীয় ম্যাচেও রান করেন শাহরিয়ার (২৩) ও বোপারা (৫৪*)।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Shares