রিকশাচালকের সততা!

সিলেট নগরীর জিন্দাবাজারে ৮৫ হাজার টাকা রাস্তায় পেয়ে ফিরিয়ে দিয়েছেন আক্তারুজ্জামান নামের এক বৃদ্ধ রিকশাচালক।

সোমবার দুপুর ২টার দিকে সিলেট নগরীর মুক্তিযোদ্ধা গলির রাস্তায় এক হাজার টাকার নোটের একটি বান্ডেল কুড়িয়ে পান আখতারুজ্জামান।

কুড়িয়ে পাওয়া ওই টাকা জেলা প্রশাসন পরিচালিত ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সাজ্জাদুল হাসান ও উম্মে সালিক রুমাইয়ার কাছে জমা দেন রিকশাচালক আক্তারুজ্জামান।

আক্তারুজ্জামানের গ্রামের বাড়ি নেত্রকোনা জেলায়। তিনি বেশ কিছুদিন ধরে সিলেটে বসবাস করছেন। পরে রুবেল আহমদ নামে এক ব্যক্তি টাকার প্রকৃত মালিক দাবিদার করলে যাচাই-বাছাইক্রমে তাকে টাকা ফিরিয়ে দেয়া হয়।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, জিন্দাবাজারস্থ ইত্যাদি ফেব্রিক্সের মালিক তার দোকানের কর্মচারী রুবেলকে প্রাইম ব্যাংক থেকে টাকা তুলতে পাঠান। টাকা তুলে সোমবার দুপুর পৌনে ২টার দিকে দোকানে ফেরার পথে তা হারিয়ে ফেলেন রুবেল।

এ বিষয়ে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সাজ্জাদুল হাসান বলেন, দুপুর ২টার দিকে জিন্দাবাজারে জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কমান্ডের সামনে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান চলছিল। এ সময় রিকশাচালক আক্তারুজ্জামান টাকা নিয়ে আমাদের কাছে আসেন। এই টাকা রাস্তায় পেয়েছেন বলে ভ্রাম্যমাণ আদালতে জমা দেন রিকশাচালক আক্তারুজ্জামান।

ম্যাজিস্ট্রেট সাজ্জাদুল হাসান আরও বলেন, আমরা টাকা পেয়ে গুণে দেখি ৮৫ হাজার টাকা। তখন প্রকৃত মালিক যাতে টাকা পায়, সেজন্য টাকার অঙ্ক আমরা গোপন রাখি। এর কিছুক্ষণের মধ্যেই রুবেল নামের এক ব্যক্তি দৌড়ে এসে বলেন, তার টাকা হারিয়েছে, এখানে রিকশাচালক টাকা পেয়েছে শুনে তিনি এসেছেন। সেই সঙ্গে রুবেল বলেন প্রাইম ব্যাংক থেকে কিছুক্ষণ আগে টাকা তুলেছেন তিনি। তখন আমরা রুবেলকে নিয়ে প্রাইম ব্যাংকে যাই, সিসিটিভির ফুটেজ দেখি এবং টাকার রশিদ মিলিয়ে সত্যতা পাওয়ায় টাকা তাকে বুঝিয়ে দিই।

রিকশাচালক আক্তারুজ্জামানের সততা প্রশংসনীয় ও বর্তমান সময়ে বিরল বলে মন্তব্য করেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সাজ্জাদুল হাসান।

 

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *