রোববার ষোড়শ সংশোধন বিল উঠছে সংসদে

বিচারপতিদের অভিশংসনের ক্ষমতা সংসদের কাছে ফিরিয়ে দিতে সংবিধানের ষোড়শ সংশোধনের প্রস্তাব সংসদে উঠছে রোববার।জাতীয় সংসদের ওযেবসাইটে প্রকাশিত রোববারে দিনের কার্যসূচি থেকে এ তথ্য জানা গেছে।

রোববার আইনমন্ত্রী আনিসুল হক বিলটি সংসদে উত্থাপন করবেন। পরে এটি পরীক্ষা করে সংসদে প্রতিবেদন দেওয়ার জন্য আইন বিচার ও সংসদ বিষযক মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটিতে পাঠানো হবে।

গত মঙ্গলবার ‘সংবিধান (ষোড়শ সংশোধন) বিল-২০১৪’ সংসদ সচিবালয়ে জমা পড়ে। বিলের একটি কপি বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমের হাতে রয়েছে।কোনো বিচারপতির অসদাচরণ বা অসামর্থ্য সম্পর্কে ‘তদন্ত ও প্রমাণ’ আইন করে সংসদ নিয়ন্ত্রণ করার শর্ত সংশোধিত প্রস্তাবে রাখা হয়েছে।চলমান সংসদ অধিবেশনেই বিলটি পাস হবে বলে এরই মধ্যে ইঙ্গিত দিযেছেন স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী। গত ১৮ অগাস্ট সংবিধানের ১৬তম সংশোধনী সংক্রান্ত বিল মন্ত্রিসভার অনুমোদন পায়।এর পরপরই আইনমন্ত্রী আনিসুল হক জানিয়েছিলেন, সংসদের চলমান অধিবেশনে বিলটি পাসের সম্ভাবনা রয়েছে।

অবশ্য বিচারপতিদের অভিশংসনের ক্ষমতা সংসদের হাতে দেওয়ার প্রস্তাবে বিরোধিতা করে আসছে নবম জাতীয় সংসদের প্রধান বিরোধীদল বিএনপি।দলটি বলছে, “একদলীয় শাসন পোক্ত করতে আওয়ামী লীগ সংবিধান সংশোধন করছে।”বর্তমান সংসদের বিরোধীদল জাতীয় পার্টিও এর বিরুদ্ধে অবস্থান নেওয়ার সিদ্ধান্তের কথা জানিয়ে দিয়েছে।

১৯৭২ সালে সংবিধান প্রণয়নের সময় উচ্চ আদালতের বিচারকদের পদের মেয়াদ নির্ধারণ ও তাদের অভিশংসনের ক্ষমতা সংসদের হাতে ছিল। ১৯৭৪ সালে সংবিধানের চতুর্থ সংশোধনীর মাধ্যমে বিচারপতিদের অভিশংসনের ক্ষমতা রাষ্ট্রপতির হাতে ন্যস্ত হয়।

চতুর্থ সংশোধনী বাতিল হলে জিয়াউর রহমানের সামরিক সরকারের আমলে এক সামরিক আদেশে বিচারপতিদের অভিশংসনের জন্য সুপ্রিম জুডিশিয়াল কাউন্সিল গঠন করা হয়।

২০১১ সালে সংবিধানের ১৫তম সংশোধনীর সময়ে বিচারপতিদের অভিশংসনের ক্ষমতা সংসদের হাতে ফিরিয়ে দেয়া নিয়ে আলোচনা ওঠে। যদিও তখন সেটি করা হয়নি।পরে ২০১২ সালে তৎকালীন স্পিকার ও বর্তমান রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদের একটি রুলিংকে কেন্দ্র করে কয়েকজন সংসদ সদস্য হাই কোর্টের একজন বিচারপতিকে অপসারণের দাবি তোলেন।মূলত সে সময়েই বিচারপতিদের অপসারণের ক্ষমতা সংসদের হাতে ফিরিয়ে আনার দাবি জোরালো হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Shares