রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনের দায় বাংলাদেশের ওপর চাপালেন সু চি

সেনাবাহিনীর হত্যা-নির্যাতন থেকে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গাদের ফেরত পাঠানোর দায়টা বাংলাদেশের ঘাড়ের ওপর চাপালেন মিয়ানমারের ক্ষমতাসীন দলের নেত্রী ও স্টেট কাউন্সিলর অং সান সু চি।

মঙ্গলবার সিঙ্গাপুরে দেওয়া ভাষণে সু চি বলেছেন, ‘বাংলাদেশকেই প্রত্যাগমনকারীদের পাঠাতে হবে। আমরা কেবল তাদের সীমান্তে স্বাগত জানাতে পারি।’

রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন প্রক্রিয়া দ্রুত শুরুর বিষয়ে বাংলাদেশকেও সিদ্ধান্ত নিতে উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘আমি মনে করি প্রক্রিয়াটা কতো দ্রুত শেষ করা যায় বাংলাদেশকেও সেই সিদ্ধান্ত নিতে হবে।’

গত বছরের ২৫ আগস্ট রোহিঙ্গা বিচ্ছিন্নতাবাদী সংগঠন আরকান রোহিঙ্গা স্যালভেশন আর্মি(আরসা) রাখাইনে মিয়ানমারের নিরাপত্তা বাহিনীর তল্লাশি চৌকিতে হামলা চালায়। এর জের ধরে রাখাইনে রোহিঙ্গা নিধন ও উচ্ছেদ অভিযানে নামে দেশটির সেনাবাহিনী। প্রাণে বাঁচতে এ পর্যন্ত প্রায় সাত লাখ রোহিঙ্গা বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছে। আন্তর্জাতিক চাপে পড়ে শেষ পর্যন্ত রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন প্রক্রিয়া শুরু করেছে মিয়ানমার। এ বিষয়ে দেশটির সরকার বাংলাদেশের সঙ্গে চুক্তিও করেছে। তবে সেই প্রত্যাবাসন প্রক্রিয়া এখনো শুরু হয়নি।

রোহিঙ্গাদের নাম উল্লেখ না করে সু চি বলেছেন, যেই সন্ত্রাসবাদী কার্যক্রমগুলো রাখাইনের মানবিক বিপর্যয়ের প্রাথমিক কারণ ছিল তা এখনো সেখানে আছে।

তিনি বলেন, ‘এই নিরাপত্তা চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করা না হলে আন্তঃসম্প্রদায় সংঘাত অব্যাহত থাকবে। এটা এমন হুমকি যা কেবল মিয়ানমারের জন্য নয় আমাদের এই অঞ্চলের ও এর বাইরের অন্য দেশের ওপরও মারাত্মক বিপর্যয়কর পরিণতি ডেকে আনবে।’

Leave a Reply