শরীরের জন্য প্রয়োজনীয় ৫টি খনিজ উপাদান

সাধারণত মানব দেহে বা শরীরে খাবারই হলো খনিজ উপাদানের উৎস। মানব দেহে খনিজের চাহিদা মাত্র চার শতাংশ হলেও শরীরের জন্য তা অতি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকে। তাই নিয়মিত ঘুমের পাশাপাশি কিছু খাবার যেমন- মাছ, ডিম,ফল, সবজি শরীরের জন্য আবশ্যক। মানব দেহের জন্য গুরুত্বপূর্ণ ৫টি খনিজ উপাদান সম্পর্কে জেনে নিন-

জিংক: মানব দেহে জন্য সাধারণত লাল মাংস, কাঠবাদাম, চিনাবাদাম, সয়া, দুগ্ধজাত খাবার, মাশরুম, যকৃত এবং সূর্যমুখীর বীজ জিংকের চমৎকার উৎস। প্রাপ্তবয়স্ক পুরুষের জিংকের দৈনিক চাহিদা ১৫ মিলিগ্রাম এবং প্রাপ্তবয়স্ক নারীর দৈনিক চাহিদা ১২ মিলিগ্রাম। রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা, বিশেষ করে প্রদাহ, ঠাণ্ডা ও কফের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়, উত্‍পাদন ক্ষমতা বৃদ্ধি, স্নায়ুতন্ত্র ও রক্ত জমাট বাঁধতে জিংক সাহায্য করে।

সোডিয়াম: দুগ্ধজাত খাবার, লেবুর রস, লবণে সোডিয়াম রয়েছে। সোডিয়াম রক্ত এবং কোষে পানির সমতা বজায় রাখতে সাহায্য করে। এর অভাবে অবসাদ, মানসিক বিভ্রান্তি, পেশিতে খিঁচ ধরা ইত্যাদি হতে পারে। প্রাপ্তবয়স্ক পুরুষের দৈনিক চাহিদা ১৫০০ মিলিগ্রাম এবং প্রাপ্তবয়স্ক নারীর দৈনিক চাহিদা ১৩০০ মিলিগ্রাম।

ক্যালসিয়াম:  কাঠবাদাম, ডুমুর, গাজর, সরিষা, বাদামি চাল, রসুন, খেজুর, পালংশাক, কাজুবাদাম ও পেঁপেতে প্রচুর পরিমাণে ক্যালসিয়াম রয়েছে। শক্ত ও মজবুত দাঁত এবং হাড় গঠন, পেশির গঠন, কোষের কার্যক্রম নিয়ন্ত্রণ এবং যোগাযোগে ক্যালসিয়াম গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে। প্রাপ্তবয়স্ক নারীর ক্যালসিয়ামের দৈনিক চাহিদা ১০০০ মিলিগ্রাম এবং প্রাপ্তবয়স্ক পুরুষের দৈনিক চাহিদা ১২০০ মিলিগ্রাম।

পটাসিয়াম:  কমলালেবু, কলা, চিনাবাদাম, শিম, ডাবের পানি ও পালং শাকে প্রচুর পরিমাণে পটাসিয়াম রয়েছে। পটাসিয়াম স্নায়ুতন্ত্র, পেশির গঠন, রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ এবং রক্তে পানির ভারসাম্য ও কোষের জন্য প্রয়োজনীয়। এর অভাবে দুশ্চিন্তা, অবসাদ ও হৃদরোগ হয়। প্রাপ্তবয়স্ক মানুষের পটাসিয়ামের দৈনিক চাহিদা ২০০০ মিলিগ্রাম। পটাসিয়ামের আধিক্যে হাইপারটেনশন হয়।

আয়োডিন ও লৌহ: আয়োডিনযুক্ত লবণ, সামুদ্রিক খাবার ও শৈবালে আয়োডিন রয়েছে। থাইরয়েড হরমোন তৈরিতে আয়োডিন ভূমিকা রাখে। প্রাপ্তবয়স্ক পুরুষের দৈনিক চাহিদা ১১০০ মাইক্রোগ্রাম এবং প্রাপ্তবয়স্ক নারীর দৈনিক চাহিদা ১৫০ মাইক্রোগ্রাম। এর অভাবে গলগণ্ড রোগ হয়। তাছাড়া সবুজ শাকসবজি, লাল মাংস, ডিম, পোলট্রি এবং সয়া লৌহের প্রধান উৎস। রক্তে অক্সিজেন সংবহনের কাজে লৌহ সহায়তা করে। প্রাপ্তবয়স্ক নারী ও পুরুষ উভয়েরই দৈনিক চাহিদা ১০-১২ মিলিগ্রাম। এর অভাবে রক্তশূন্যতা, দুর্বলতা, নখের রং পালটে যাওয়া, বিষণ্নতা ইত্যাদি হতে পারে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Shares