শীতে পা ফাটা দূর করুন ৩টি উপায়ে

শীতকালে ত্বকের যে সকল সমস্যায় পড়তে হয় তার মধ্যে পা ফাটা হল অন্যতম। শুষ্ক আবহাওয়া ও পায়ের পাতার গোড়ালির নিচের অংশ ফেটে যাওয়াকে পা ফাটা বলে। সাধারণত শীতকালে পা ফাটা সমস্যাটা দেখা যায়, তবে অনেকেই সারা বছর পা ফাটা সমস্যায় ভোগে থাকেন। অনেকেই পা ফাটা রোধ করার জন্য বিভিন্ন ধরনের ক্রিম ব্যবহার করে থাকেন। কিন্তু সবসময় এই সকল ক্রিম কাজ করে না। বরং কোন কোন ক্রিমে পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া হয়ে থাকে। এই পা ফাটা ঘরোয়া উপায়ে দূর করা সম্ভব।

পা ফাটার কারণ
১. ঠান্ডা আবহাওয়া
২. পানির স্বল্পতা
৩. কারো পা প্রাকৃতিক ভাবে শুষ্ক হয় তবে ফেটে যেতে পারে
৪. দীর্ঘ সময় কোন শক্ত স্থানে দাঁড়িয়ে থাকলে পা ফেটে যেতে পারে
৫. অনেক গরম পানি দিয়ে গোসল করা
৬. ডায়াবেটিস বা থাইরয়েডে সমস্যায়
৭. বয়স বৃদ্ধির কারণে
৮. নিয়মিত ময়েশ্চারাইজিং না করা ইত্যাদি।

পেট্রোলিয়াম জেলি এবং লেবুর রস
পেট্রোলিয়াম জেলি আপনার শুষ্ক ত্বককে ময়েশ্চারাইজ করে থাকে। এটি ফাটা দাগ সমান করে থাকে। এর সাথে পায়ের পাতা নরম করে তোলে।
১. ১ চা চামচ পেট্রোলিয়াম জেলি, ১টি লেবুর রস মিশিয়ে নিন।
২. প্রথমে পা কুসুম গরম পানিতে ১০ মিনিট ভিজিয়ে রাখুন।
৩. তারপর পা শুকিয়ে নিন।
৪. জেলি, লেবুর রসের মিশ্রণটি পায়ে লাগান।
৫. হালকা হাতে ম্যাসাজ করুন।
৬. এভাবে সারা রাত রাখুন। সকালে ঘুম থেকে উঠে পা ধুয়ে ফেলুন।
৭. ভাল ফল পেতে নিয়মিত ব্যবহার করুন।

ভিনেগার
১. ভিনেগারে অ্যাসিটিক এসিড আছে যা পায়ের তালু এক্সফলিয়েট করে। পায়ের পাতাকে নরম করে থাকে।
২. ১/২ বা ১ কাপ সাদা বা আপেল সাইড ভিনেগার এবং ২ কাপ পানি দিয়ে মিশিয়ে নিন।
৩. এই মিশ্রণে পা ১০ থেকে ১৫ মিনিট ভিজিয়ে রাখুন।
৪. তারপর হালকা হাতে ঘষে নিন।
৫. পা শুকিয়ে গেলে পেট্রোলিয়াম জেলি বা ময়েশ্চারাইজার দিয়ে দিন।
৬. এছাড়া চালের গুঁড়া, মধু, ভিনেগার, অলিভ অয়েল মিশিয়ে প্যাক তৈরি করে নিন।
৭. পা ভাল করে ধুয়ে এটি দিয়ে কয়েক মিনিট ঘষুন। তারপর কসুমু গরম পানি দিয়ে পা ধুয়ে ফেলুন। এটি সপ্তাহে দু বার করুন।

নারকেল তেল
পা ফাটা রোধ করার সবচেয়ে সহজ এবং সস্তা উপায় হল নারকেল তেল। নারকেল তেল পা ময়েশ্চারাইজ করে ব্যাকটেরিয়া, ফাঙ্গাস দূর করে থাকে।
১. ঘুমাতে যাওয়ার আগে কুসুম গরম পানিতে পা ভিজিয়ে নিন। তারপর পা ঘষে নিন।
২. তারপর পা মুছে নারকেল তেল লাগিয়ে নিন।
৩. এভাবে সারা রাত থাকুন।
৪. পরের দিন সকালে পা ধুয়ে ফেলুন।
৫. এটি নিয়মিত করুন যত দিন পর্যন্ত না পা ফাটা সম্পূর্ণ ভাল হচ্ছে। আপনি চাইলে অলিভ অয়েলও ব্যবহার করতে পারেন।

Leave a Reply