সোহেল তাজের অপহৃত ভাগনে উদ্ধার

ময়মনসিংহের তারাকান্দা উপজেলার বটতলা বাজার এলাকা থেকে সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী তানজিম আহমেদ সোহেল তাজের অপহৃত ভাগনে সৈয়দ ইফতেখার আলম সৌরভকে উদ্ধার করা হয়েছে। আজ বৃহস্পতিবার ভোর সাড়ে পাঁচটার দিকে একটা গাড়ি থেকে অপহরণকারীরা তাঁকে নামিয়ে দিয়ে যায়।

তারাকান্দা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মিজানুর রহমান জানান, সৌরভকে এখন ঢাকায় নেওয়া হচ্ছে।

আজ সকাল ছয়টায় ফেসবুক লাইভে এসে সোহেল তাজ জানান, যে জায়গায় তাঁর ভাগনেকে ফেলে রাখা হয়েছিল, সেখান থেকে পুলিশ সুপার তাঁকে নিয়ে এসেছেন। সৌরভ এখন পুলিশ হেফাজতে। তাঁকে ঢাকায় আনা হচ্ছে।

সোহেল তাজের ভাগনে সৌরভ ৯ জুন চট্টগ্রাম থেকে অপহৃত হন। ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে গত মঙ্গলবার আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে সৌরভের বাবা-মা জানান, গত ১৬ মে বনানীর একটি বাসা থেকে র‍্যাব-১ পরিচয়ে সৌরভকে একদল লোক তুলে নিয়ে যায়। তারাই দ্বিতীয় দফা অপহরণের সঙ্গে জড়িত। অপহরণের প্রথম থেকে র‍্যাব-পুলিশ ছাড়াও তাঁরা দুটি গোয়েন্দা সংস্থার যুক্ত থাকার কথা বলছেন। তাঁদের অভিযোগ, সৌরভের ব্যক্তিগত একটি সম্পর্কের জের ধরে তাঁকে তুলে নিয়ে যাওয়া হয়।

গতকাল বুধবার দুপুরের দিকে ফেসবুক লাইভে সোহেল তাজ বলেন, মঙ্গলবার রাত ২টা ২০ মিনিটে সৈয়দ ইফতেখার আলম সৌরভের ফোন নম্বর থেকে তাঁর মায়ের নম্বরে ফোন এসেছিল। লাইভে তাঁর সঙ্গে ছিলেন সৌরভের মা সৈয়দা ইয়াসমিন আরজুমান ও বাবা মো. ইদ্রিস আলী। তাঁর প্রশ্নের জবাবে সৌরভের বাবা-মা বলেন, রাত ২ টা ২০ মিনিটে হোয়াটসঅ্যাপ থেকে সৌরভের মা ইয়াসমিনের নম্বরে ফোন আসে। কিন্তু অন্য প্রান্ত থেকে কেউ কথা বলেনি। ছিল সুনসান নীরবতা। নম্বরটি খোলা আছে এবং অনবরত তাঁরা সৌরভের নম্বরে ফোন করলেও কেউ ধরছেন না। তাঁরা খুদে বার্তাও পাঠিয়েছেন। এ বিষয়ে চট্টগ্রামের উপকমিশনার (অপরাধবিষয়ক), গোয়েন্দা বিভাগ (উত্তর), উপকমিশনার (কাউন্টার টেররিজম অ্যান্ড ট্রান্স ন্যাশনাল ক্রাইম) ও পাঁচলাইশ থানাকে তাঁরা জানিয়েছেন।