১১ মাসের শিশুকে ধর্ষণ

মানুষের বিবেক আজ কোথায় নেমেছে, তা আসলে বর্ণনা দিয়ে প্রকাশ করা হয়তো আসলেই আমাদের সম্ভব না। বর্তমান সমাজে ধর্ষণের মত ঘৃণ্য কাজের হাত থেকে রেহাই পায় না শিশু থেকে বৃদ্ধরা। কিন্তু তাই বলে ১১ মাসের শিশুকে ধর্ষণ! হ্যাঁ এমনটাই ঘটেছে ভারতের পশ্চিম দিল্লির বিকাশপুরীতে। প্রসঙ্গত, ঘটনাটি একবছর আগের। তখন বিভিন্ন আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমে প্রকাশিত হলেও ভারতের পাঞ্জাব ভিত্তিক পিটিসি নিউজ ৫ অক্টোবর ও ডেইলি পাকিস্তান গত ৭ অক্টোবর এই ঘটনা প্রকাশ করে। এরপর সেটি আবার নতুন করে ভাইরাল হয়ে যায়।

জানা যায়, রাতে একটি অস্থায়ী নিবাসে মায়ের সঙ্গে ঘুমিয়ে ছিল শিশুটি। ঘুমন্ত অবস্থায় শিশুটিকে তুলে নিয়ে যায় ৩৬ বছর বয়সী একজন নির্মাণ শ্রমিক। সে কাজের উদ্দেশ্যে বিহার থেকে নিয়মিত দিল্লী আসা যাওয়া করতো। সেদিন রাত ১০টার দিকে অভিযুক্ত ধর্ষক শিশুটিকে ঘুমন্ত অবস্থায় তুলে ঝোপের মধ্যে নিয়ে যায় ও ধর্ষণ করে। রাত ১১ টার দিকে শিশুটির মা ঘুম থেকে জেগে উঠে দেখে তারা সন্তান নেই। তখন তিনি পুলিশের কাছে অভিযোগ করলে শিশুটির খোঁজ শুরু করে আইন শৃঙ্খলাবাহিনী। পরে তারা শিশুটিকে ঝোপের মধ্যে অচেতন অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখে দ্রুত উদ্ধার করে পার্শ্ববর্তী দীন দয়াল উপাধ্যায় হাসপাতালের আইসিইউতে ভর্তি করেন। হাসপাতাল থেকে জানানো হয়েছিল শিশুটির অবস্থা আশঙ্কাজনক।

এদিকে, ঘটনাস্থল থেকে ধর্ষকের মোবাইল ফোনটি উদ্ধার করেছিল পুলিশ। মোবাইলের সূত্র ধরেই তাকে পাশের নির্মাণ শ্রমিকদের থাকার জায়গা থেকে গ্রেফতার করা হয়। অপরাধী তার অভিযোগ স্বীকার করে নিয়েছে।

স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দিতে অপরাধী জানিয়েছে, সে শিশুটিকে ঝোপের ভেতর নিয়ে গিয়ে প্রায় দুই ঘণ্টা যাবত পাশবিক নির্যাতন করে। একপর্যায়ে শিশুটি অচেতন হয়ে পড়লে মৃত ভেবে তাকে ফেলে চলে আসে।

সূত্রঃ টাইমস অফ ইন্ডিয়া

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *