৫৫ বছরের আক্ষেপ ঘুচবে বেলজিয়ামের?

‘পেন্টা ক্যাম্পিও’ খ্যাত ব্রাজিল চলতি রাশিয়া বিশ্বকাপে বেশ ভালোভাবেই টিকে আছে। ‘মিশন হেক্সা’র পথে আগামী শুক্রবার কাজান অ্যারেনা স্টেডিয়ামে কোয়ার্টার ফাইনালে বেলজিয়ামের মুখোমুখি হবে দলটি। ব্রাজিলের জন্য ষষ্ঠবারের মতো শিরোপা জয়ের লড়াই হলেও বেলজিয়ামের জন্য তা ৫৫ বছরের আক্ষেপ ঘোচানোর সুযোগ।

পরিসংখ্যান বলছে, ৫৫ বছর আগে শেষবার ব্রাজিলের বিপক্ষে জয় পেয়েছিল ইউরোপের ‘রেড ডেভিলস’ খ্যাত বেলজিয়াম। ১৯৬৩ সালে এক প্রীতি ম্যাচে সেবার সাম্বা ফুটবল খেলা ব্রাজিলকে ৫-১ গোলের বড় ব্যবধানেই হারিয়েছিল বেলজিয়াম। তবে সেবারই শেষ। এরপর আজও অবধি আর ব্রাজিলের বিপক্ষে জয়ের স্বাদ পায়নি বেলজিয়াম।

বিগত ৫৫ বছরে তিনবারের মোকাবেলায় বেলজিয়ামকে একবারও জয় নিয়ে মাঠ ছাড়তে দেয়নি ব্রাজিল। ১৯৬৫ সালে দ্বিতীয় মোকাবেলায় পেলের হ্যাটট্রিকে ৫-০ ব্যবধানে বেলজিয়ামকে হারিয়েছিল তখনকার ব্রাজিল। এরপর ১৯৮৮ সালে জিওভান্নির জোড়া গোলে বেলজিয়ামকে ২-১ গোলের ব্যবধানে হারিয়েছিল সেলেসাওরা।

চলতি রাশিয়া বিশ্বকাপের কোয়ার্টার ফাইনালের দ্বিতীয় ম্যাচ তাই বেলজিয়ামের কাছে বেশ গুরুত্বপূর্ণ। সেমিফাইনালে যাবার হাতছানি তো আছেই। আছে ৫৫ বছরের তৃষ্ণা মেটানোর সুযোগ।

বিশ্বকাপের মতো আসরে বেলজিয়ামের বিপক্ষে মাত্র একবারই মোকাবেলা করেছে ব্রাজিল। সেটা ২০০২ সালে। সেবার দ্বিতীয় রাউন্ডে ২-০ গোলের ব্যবধানে হারিয়েছল ব্রাজিল। শেষ পর্যন্ত তো সেবার বিশ্বকাপই জিতে নেয় সলারির ব্রাজিল। ঐ ম্যাচে রিভালদো এবং রোনালদো একটি করে গোল করে ব্রাজিলের জয়ে অবদান রেখেছিলেন।

২০০২ সালের পর ২৩৯টি ম্যাচ এবং ৬৩টি ভিন্ন প্রতিপক্ষের বিপক্ষে খেললেও বেলজিয়ামের বিপক্ষে নামা হয়নি ব্রাজিলের। এই সময়ে আর্জেন্টিনার বিপক্ষে সর্বোচ্চ ১৮টি ম্যাচ খেলেছে সেলেসাওরা। তবে, ইউরোপিয়ান প্রতিপক্ষের দিক দিয়ে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে সর্বোচ্চ ৭টি ম্যাচ খেলেছে ব্রাজিল। সব মিলিয়ে জমজমাট একটি ম্যাচের অপেক্ষায় রয়েছে পুরো বিশ্ব। তবে শেষমেষ কার ঘরে যাবে করতালি, তা ম্যাচ শেষেই বোঝা যাবে।

Leave a Reply