রূপচর্চায় অলিভ অয়েলের নানা ব্যবহার

শত শত বছর ধরে অলিভ অয়েল বিভিন্নভাবে ব্যবহৃত হয়ে আছে। সম্প্রতি অনেক প্রসাধনীতে এর ব্যবহার বেড়েছে। অলিভ অয়েলের নানা গুণাগুণ রয়েছে, যার কারণে অলিভ অয়েল খুব জনপ্রিয়।

রূপচর্চায় অলিভ অয়েলের গুরুত্ব অনেক। সংবেদনশীল ত্বকের জন্য অলিভ অয়েল খুব সাহায্যকারী। গবেষকরা বলছেন, অলিভ অয়েলে রয়েছে ভিটামিন-এ, ই এবং অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট, যা ত্বককে সতেজ রাখে। ত্বকে ময়েশ্চারাইজারেরও কাজ করে অলিভ অয়েল।

★ রূপচর্চায় অলিভ অয়েলের নানা ব্যবহার। আসুন জেনে নিই…..

→ অনেক আগে থেকে চুলের জন্য অলিভ অয়েল ব্যবহার করা হচ্ছে। একটি ডিম ও দুই চা চামচ অলিভ অয়েল ভালো করে মিশিয়ে নিন। মিশ্রণটি চুলের গোড়ায় লাগিয়ে ২০ মিনিট রাখুন। তার পর শ্যাম্পু করে ফেলুন। এর ফলে চুলের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি পাবে।

→ ঠোঁটের সৌন্দর্য বৃদ্ধিতে অলিভ অয়েল উত্তম। এক চা চামচ চিনি ও লেবুর রসের সঙ্গে অলিভ অয়েল ভালো করে মিশ্রিত করতে হবে। রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগে পরিষ্কার তোয়ালে কিংবা টিস্যু দিয়ে ঠোঁট পরিষ্কার করে তার পর অলিভ অয়েল লাগান। লিপস্টিক লাগানোর আগেও সামান্য অলিভ অয়েল লাগালে ঠোঁট নরম থাকবে।

→ অনেক সময় চোখের মেকআপ পরিষ্কার করা বেশ কষ্টকর হয়ে পড়ে। অলিভ অয়েল খুব সহজেই চোখ থেকে মেকআপ পরিষ্কার করতে সাহায্য করে। চোখের মেকআপ তোলার সময় তুলা কিংবা পরিষ্কার নরম কাপড় নিয়ে তাতে সামান্য অলিভ অয়েল নিয়ে আস্তে আস্তে ম্যাসাজ করুন। দেখবেন, পুরো মেকআপ উঠে যাবে।

→ কান পরিষ্কার রাখার সবচেয়ে সহজ ও কার্যকর মাধ্যম। রাতে ঘুমানোর আগে কয়েক ফোঁটা অলিভ অয়েল দিলে কানে ময়লা জমতে পারে না।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Shares