পাকিস্তানের বিপক্ষে টেস্টের আগে তামিমের ডাবল, মুমিনুলের সেঞ্চুরি

Advertisements

পাকিস্তানের বিপক্ষে টেস্ট সিরিজ শুরুর আগে প্রয়োজন ছিল বাংলাদেশের টেস্ট দলের ব্যাটসম্যান এবং বোলারদের দারুণ একটা প্রস্তুতি। বাংলাদেশ ক্রিকেট লিগের (বিসিএল) মাধ্যমে সেই প্রস্তুতিটাই সম্ভবত বেশ ভালোভাবে হয়ে গেলো বাংলাদেশ দলের বেশ কয়েকজন ক্রিকেটারদের।

এদের মধ্যে নিজেকে সবার ওপরে তুলে ধরেছেন বাংলাদেশ দলের অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যান এবং ওপেনার তামিম ইকবাল। দুর্দান্ত এক ডাবল সেঞ্চুরি করেছেন তামিম ইকবাল। সঙ্গে টেস্ট দলের অধিনায়ক মুমিনুল হকও নিজেকে আবারও চিনিয়েছেন সেঞ্চুরি।

বিসিএলে মিরপুর শেরে বাংলা ক্রিকেট স্টেডিয়ামে সেন্ট্রাল জোনের বিপক্ষে ইস্ট জোনের হয়ে ডাবল সেঞ্চুরি করেন তামিম। ১২৬ বল খেলে প্রথমে সেঞ্চুরি করেন তিনি। এরপর ১৮০ বলে করেন ১৫০ রান। সর্বশেষ ২৪২ বলে ডাবল সেঞ্চুরি পূরণ করেন।

আগেরদিন ইস্ট জোনের স্পিনার তাইজুল ইসলামের ঘূর্ণি ফাঁদে পড়ে ২১৩ রানে অলআউট হয়ে যায় সেন্ট্রাল জোন। এরপর ব্যাট করতে নেমে মাত্র ৫ রানে দিন শেষ করে ইস্ট জোন।

আজ দ্বিতীয় দিন ব্যাট করতে নেমে দলীয় ৬২ রানে, ব্যক্তিগত ২৬ রানে আউট হয়ে যান ওপেনার পিনাক ঘোষ। এরপর জুটি বাধেন তামিম ইকবাল এবং অধিনায়ক মুমিনুল হক। এ দু’জনের প্রায় ৩০০ রানের কাছাকাছি (এখনও পর্যন্ত অপরাজিত), জুটি হয়ে গেছে। এরই মধ্যে ডাবল সেঞ্চুরি করেছেন তামিম এবং সেঞ্চুরি করেছেন মুমিনুল হক।

১৮০ বল খেলে সেঞ্চুরির মাইলফলকে পৌঁছান মুমিনুল হক। চা বিরতিতে যাওয়ার আগ পর্যন্ত তামিম ইকবাল ব্যাট করছিলেন ২০৬ রানে। মুমিনুল হক ব্যাট করছিলেন ১০৭ রানে। সেন্ট্রাল জোনের মোস্তাফিজুর রহমান, শহিদুল ইসলাম, শুভাগত হোম, মুকিদুল ইসলাম, সোহরাওয়ার্দি শুভ কিংবা সাইফ হাসানরা বল করেও পারেননি দুই বাঁ-হাতি তামিম-মুমিনুলের জুটিতে ভাঙন ধরাতে পারেননি।

২৯টি বাউন্ডারির সাহায্যে তামিম ২০৬ রানের ইনিংসটি সাজান। ১১টি বাউন্ডারির সঙ্গে ১টি ছক্কার মার মারেন মুমিনুল হক।

৭ ফেব্রুয়ারি থেকে রাওয়ালপিন্ডিতে পাকিস্তানের বিপক্ষে শুরু হবে বাংলাদেশের প্রথম টেস্ট। এ লক্ষ্যে ৪ ফেব্রুয়ারি পাকিস্তানের উদ্দেশ্যে রওয়ানা হওয়ার কথা রয়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের।