Advertisements

এখন থেকে ট্রাফিক আইন ভঙ্গের জরিমানা ঘটনাস্থলেই আদায় করা হবে; গাড়ির কাগজ জব্দ করে রাখার প্রয়োজন পড়বে না।

রোববার রাজধানীর কাকরাইলের রাজমনি ক্রসিং এলাকায় জরিমানা আদায়ের নতুন পদ্ধতি উদ্বোধন করেন ঢাকা মহানগর পুলিশ কমিশনার মোঃ আছাদুজ্জামান মিয়া।

তিনি বলেন, “আজ থেকে ট্রাফিক ই-প্রসিকিউশনের জরিমানার টাকা ঘটনাস্থলেই ডেবিট বা ক্রেডিট কার্ড, ইউক্যাশ, বিকাশ, রকেট দিয়ে পরিশোধ করা যাবে। কোন কাগজ জব্দ করার প্রয়োজন নেই। গাড়ি রেকারিং জরিমানার টাকাও নগদ আদায় করা হবে। এক্ষত্রে পুর্বের যে নিয়ম ছিল তা বাতিল হল।”

এতোদিন ট্রাফিক আইন ভঙ্গে জরিমানার ক্ষেত্রে হাতে লেখা বা প্রিন্টেড কেস স্লিপ চালকে দিয়ে তার গাড়ির কাগজপত্র জব্দ করা হতো। ওই স্লিপ দেখিয়ে ব্যাংকে জরিমানা পরিশোধ করে ট্রাফিক অফিসে গিয়ে জব্দ করা কাগজ নিতে হতো, যাতে চালকদের ভোগান্তি পোহাতে হতো।

এখনো কেউ জরিমানার টাকা তাৎক্ষণিকভাবে পরিশোধ করতে না পারলে তার ক্ষেত্রে কাগজপত্র জব্দ করে মামলার স্লিপ দেওয়ার সুযোগ থাকবে।

ডিএমপি কমিশনার বলেন, “এখন থেকে এই কষ্টকর ও সময়সাপেক্ষ কাজের অবসান হলো। ট্রাফিক কার্যক্রমকে ডিজিটালাইজেশন করার  যে স্বপ্ন ছিল, তা আরেক ধাপ এগোলো।”

পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা, প্রকল্পের সহযোগী প্রতিষ্ঠান ইউসিবিএল, আইটিসিএল ও বাংলালিংকের প্রতিনিধিরা এসময় সেখানে ছিলেন।

এর আগে ঢাকা মহানগরীর সড়কে ও ফুটপাতে চলাচল করা পথচারীদের আরও অধিক সচেতন করার লক্ষ্যে ডিএমপি ট্রাফিক বিভাগের পক্ষ থেকে চার ট্রাফিক বিভাগ এলাকায় ‘পথচারীর করণীয়’ শীর্ষক সচেতনতামূলক কর্মসূচি উদ্বোধন করেন কমিশনার।

এ কর্মসূচি ঢাকা মহানগরীর একশটি মোড়ে একযোগে পালন করা হবে। যে সব মোড়ে পথচারীরা বেমি অনিয়ম করে সেখানে তাদেরকে জড়ো করে ব্যানারে লেখা সচেতনামূলক স্লোগানগুলো পড়িয়ে নিয়ম মেনে চলতে উৎসাহিত করা হবে।

By Abraham

Translate »