খেলার খবর

রিয়াল না গিয়ে বার্সায় ফিরে এসো, নেইমারকে পরামর্শ মেসির

Advertisements

নেইমারকে ফোন করেছিলেন লিওনেল মেসি। রিয়াল মাদ্রিদে যোগ না দিয়ে নেইমারকে বার্সেলোনায় ফেরার পরামর্শ দিয়েছেন মেসি। সংবাদমাধ্যমের মতে, নেইমার বার্সায় ফেরার খুব কাছাকাছি পৌঁছে গেছেন

নেইমারের দলবদল নাটকের শুরুতে ছিল পিএসজি ও বার্সেলোনা। এরপর অনুপ্রবেশ ঘটল রিয়াল মাদ্রিদের। আর এখন শোনা যাচ্ছে লিওনেল মেসির নাম!

এ যেন সিনেমার চিত্রনাট্য। মুখ ফুটে না বললেও নেইমার পিএসজি ছেড়ে যোগ দিতে চান বার্সায়। কাতালান ক্লাবটিও তাঁকে ফিরে পেতে চায়। কিন্তু পিএসজির সঙ্গে বার্সার দলবদলের ইতিহাস তিক্ততায় ভরপুর। এবারও একপর্যায়ে জানা গেল, নেইমারকে বার্সা ছাড়া অন্য যেকোনো ক্লাবের কাছে বেচতে রাজি পিএসজি। আর ঠিক তখনই দলবদলের মঞ্চে আবির্ভাব ঘটল রিয়াল মাদ্রিদের। নেইমারকে তারাও কিনতে চায়। রিয়াল সভাপতি ফ্লোরেন্তিনো পেরেজ চেষ্টা করছেন বেশ আগ্রহ নিয়েই। নেইমার রিয়ালে চলে যেতে পারেন, এমন সুরও উঠেছে বাজারে। তা থামাতেই মেসি ফোন করেছিলেন নেইমারকে।

হ্যাঁ, রিয়ালে যোগ না দিয়ে বার্সায় ফেরার জন্য নেইমারকে ফোন করেছিলেন মেসি। দুজনের অন্তরঙ্গ সম্পর্ক আজকের নয়। নেইমার (২০১৩-২০১৭) বার্সায় থাকার সময়ে গড়ে ওঠে দুজনের বন্ধুত্ব, পরে তাতে যোগ দেন লুইস সুয়ারেজও। স্প্যানিশ সংবাদমাধ্যম ‘মার্কা’ জানিয়েছে, ব্রাজিলিয়ান তারকা বার্সার চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী দলের হয়ে খেলুন, তা চান না আর্জেন্টাইন তারকা। এ কারণে নেইমারকে ফোন করে মেসি পরামর্শ দিয়েছেন, রিয়ালের সঙ্গে চুক্তি না করে বার্সায় ফিরতে।

নেইমার বার্সায় থাকার মেসি-সুয়ারেজকে নিয়ে আক্রমণভাগে গড়েছিলেন ‘এমএসএন’ জুটি। ত্রিফলা এ আক্রমণভাগ বার্সাকে দিয়েছে অনেক। একাদশে তাদের নিয়ে আশি শতাংশের ওপরে ম্যাচ জিতেছে বার্সা। আর এ তিন খেলোয়াড়ের বোঝাপড়া ছড়িয়ে পড়ে মাঠের বাইরেও। দুই বছর আগে নেইমারের পিএসজিতে যোগ দেওয়ার বিপক্ষে ছিলেন মেসি। ব্রাজিল তারকাকে তখনো বার্সায় থেকে যাওয়ার কথা বলেছিলেন তিনি। তাতে কাজ না হলেও মেসি বলেছিলেন, নেইমার বার্সায় ফিরতে পারলে খুশিই হবেন।

মার্কার প্রতিবেদন অনুযায়ী, মেসি শুধু বার্সার অধিনায়কই নন, তাঁর মতামত ও ইচ্ছা দলটির নীতিনির্ধারকদের কাছেও অনেক গুরুত্বপূর্ণ। ক্লাবের সিদ্ধান্তে মেসির ইচ্ছা-অনিচ্ছা অনেক প্রভাব রাখে। তার একটি প্রমাণ, গত মৌসুম শেষে বার্সা কোচ আর্নেস্তো ভালভার্দের থেকে যাওয়ার বিষয়টি। তাঁকে সরিয়ে দেওয়ার পক্ষে ছিলেন বার্সার অনেক সমর্থক। কিন্তু ড্রেসিংরুমে ভালভার্দের পক্ষে অবস্থান নিয়েছিলেন মেসি-পিকে-বুসকেটসসহ অন্যরা। অবশ্য বার্সা সভাপতি হোসে মারিয়া বার্তোমেউও ভালভার্দেকে রেখে দেওয়ারই পক্ষে কথা বলেছেন সব সময়। সব মিলিয়ে ভালভার্দের চাকরি সে যাত্রায় টিকে যায়।

সুয়ারেজ, নেইমার ও মেসি—এ তিনজন একসঙ্গে বার্সার আক্রমণভাগ মাতিয়েছেন এক সময়। ছবি: মার্কাসুয়ারেজ, নেইমার ও মেসি—এ তিনজন একসঙ্গে বার্সার আক্রমণভাগ মাতিয়েছেন এক সময়। ছবি: মার্কাএবার নেইমারও ফিরবেন? মেসির মতো দলটির আরও কিছু খেলোয়াড়ের প্রত্যাশা, নেইমার ফিরে আসুন বার্সায়। তবে সবার তা মুখ ফুটে না বললেও চলবে। কারণ মেসি যেখানে নেইমারের সঙ্গে খেলার ইচ্ছা প্রকাশ করেছেন, তখন তাঁকে সন্তুষ্ট রাখতে সব রকম চেষ্টাই করবে বার্সা—জানিয়েছে মার্কা। এদিকে পিএসজি সমর্থকেরাও নেইমারের ওপর বিরক্তি প্রকাশ করেছেন। যাচ্ছি…যাব করতে করতে নেইমার আসলে ক্লাবটিরও বিরক্তি উৎপাদন করছেন। পরশু নিমের মুখোমুখি হয়ে লিগ শিরোপা ধরে রাখার লড়াই শুরু করে পিএসজি। এ ম্যাচে নেইমার পিএসজির স্কোয়াডে না থাকলেও গ্যালারিতে দলটির সমর্থকেরা তাঁকে উদ্দেশ করে ব্যানারে লিখে এনেছিলেন, ‘এখান থেকে চলে যাও।’ সঙ্গে ‘শ্রুতিমধুর’ কিছু বাক্যও ছিল।

পিএসজিও তাদের সেরা খেলোয়াড়টিকে বেচতে চায়, তবে দামটা হতে হবেন এমন যা নেইমারের যোগ্যতার সঙ্গে যায়। নেইমারের এই দলবদল নাটকের শেষ খবর হলো, পিএসজি তাদের অফিশিয়াল দোকান থেকে নেইমারের জার্সি থেকে শুরু করে যা কিছু আছে, সব তুলে নিয়েছে। অর্থাৎ নেইমারকে ছেড়ে দেওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছে ক্লাবটি। পিএসজির আইনজীবী হুয়ান দে দিওস ক্রেসপোকেও দেখা গেছে ক্যাম্প ন্যূতে। এই আইনজীবীই নেইমারের বার্সা থেকে পিএসজির আসার ট্রান্সফার ফি (২২ কোটি ২০ লাখ ইউরো) জমা রেখেছিলেন।

মার্কা জানিয়েছে, সোমবার তাঁকে ক্যাম্প ন্যূতে দেখা গেছে। সেখানে ছিলেন বার্সা সভাপতি হোসে মারিয়া বার্তোমেউ। তবে বার্সা সভাপতি মিনিট দশেক পরই ক্লাবের অফিস ছেড়ে বেরিয়ে যান। কেউ কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি। তবে ক্রেসপো জানিয়েছেন, নেইমারের ট্রান্সফার সম্পর্কিত কোনো ব্যাপারে তিনি ক্যাম্প ন্যূতে আসেননি। এদিকে স্প্যানিশ সংবাদমাধ্যম ‘লা সেক্সটা’ জানিয়েছে, নেইমার বার্সায় ফেরার খুব কাছাকাছি পৌঁছে গেছেন। আর এই চুক্তির অংশ হবেন ফিলিপ কুতিনহো।