দ্বিতীয় ম্যাচেই হোঁচট খেলো রিয়াল মাদ্রিদ – C News
খেলার খবর

দ্বিতীয় ম্যাচেই হোঁচট খেলো রিয়াল মাদ্রিদ

প্রথম ম্যাচে সেল্টা ভিগোর মাঠে গিয়ে ৩-১ গোলের দারুণ এক জয় নিয়ে ফিরে এসেছিল জিনেদিন জিদান এবং তার দল রিয়াল মাদ্রিদ। কিন্তু এক সপ্তাহ না যেতেই পুরো পরিবর্তন লজ ব্লাঙ্কোজদের।

শুধু তাই নয়, নিজেদের মাঠে যেখানে ফেবারিট হিসেবে শুরু করার কথা রিয়ালের, সেখানে সান্তিয়াগো বার্নাব্যুতে প্রথম ম্যাচেই হোঁচট খেয়ে বসলো জিদানের শিষ্যরা। রিয়াল ভায়াদোয়িদের সঙ্গে ১-১ গোলে ড্র করে পয়েন্ট খুইয়ে ফেললো তারা।

ঘরের মাঠে পুরোপুরি রঙহীন এক রিয়াল মাদ্রিদকে দেখা গেলো শনিবার রাতে। রিয়াল ভায়াদোয়িদের বিপক্ষে যেখানে সবাই ভেবেছিল মাদ্রিদিস্তারা হয়তো গোলের বন্যায় ভাসিয়ে দেবে, সেখানে গোলই বের করতে পারেনি করিম বেনজেমা কিংবা গ্যারেথ বেলরা।

বার্নাব্যুতে প্রায় ৬৪ হাজার দর্শককে পুরোপুরি হতাশ করে ছেড়েছে রিয়াল ফুটবলাররা। গোলের দেখা না পেতে পেতে যখন সবাই হতাশ হয়ে পড়েছিল, তখন, ম্যাচের ৮২তম মিনিটে একটি গোল করে তাদের মুখে হাসি ফোটান করিম বেনজেমা। কিন্তু ম্যাচের একেবারে অন্তিম মুহূর্তে (৮৮তম মিনিটে) স্বাগতিকদের আবারও হতাশ করে দিয়ে রিয়ালের জালে বল জড়িয়ে দেন ভায়াদোয়িদের সার্জি গার্দিওলা।

শেষ পর্যন্ত ১-১ গোলে ড্র করেই পয়েন্ট ভাগাভাগি করে নিতে বাধ্য হলো রিয়াল মাদ্রিদ। দুই ম্যাচ থেকে রিয়ালের পয়েন্ট এখন ৪। ড্র করার ফলে ২ পয়েন্ট কমে গেলো লজ ব্লাঙ্কোজদের।

ম্যাচের শুরু থেকেই আক্রমণের পসরা সাজিয়ে বসেছিল রিয়াল। কিন্তু একের পর এক আক্রমণেও গোল আদায় করে নিতে পারছিল না বেনজেমা-বেল কিংবা হামেশ রদ্রিগেজরা। শেষ পর্যন্ত ম্যাচের ৮২তম মিনিটে দুর্দান্ত এক গোল করেন বেনজেমা। রাফায়েল ভারানের একটি পাসকে নিয়ন্ত্রণে নিয়ে ডান প্রান্ত থেকে ডান পায়ের দুর্দান্ত এক শটে ভায়াদোয়িদের জালে জড়ান তিনি।

real-madrid-1.jpg

এই এক গোলে যখন জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ার প্রস্তুতি নিচ্ছিল রিয়াল মাদ্রিদ, তখনই আবার গোল হজম করে বসে তারা। অস্কার প্লানোর থ্রো বল ধরে টনি ক্রুসকে কাটিয়ে বাঁ-পায়ের দারুণ এক শটে রিয়ালের জালে বল জড়িয়ে দেন সার্জি গার্দিওলা। থিবাত কুর্তোয়া ঝাঁপিয়ে পড়েও রক্ষা করতে পারলেন না বলটি। অথচ, পুরো ম্যাচে ভায়াদোয়িদের ওটা ছিল গোল লক্ষ্যে কেবল দ্বিতীয় শট।

অথচ, বেনজেমার গোলের বেশ কিছুক্ষণ আগেই গোল পেতে পারতো রিয়াল। ইস্কোর পরিবর্তে ৬৮ মিনিটে মাঠে নেমেই সার্বিয়ান স্ট্রাইকার লুকা জোভিকের দুর্দান্ত একটি হেড ক্রসবারে লেগে ফিরে আসে। ওটা আরেকটু নিচ দিয়ে গেলেই নিশ্চিত গোল। কিন্তু দুর্ভাগ্য রিয়ালের। তার আগেই গ্যারেথ বেল এবং হামেশ রদ্রিগেজ বেশ কিছু সুবর্ণ সুযোগ মিস করে ফেলেন।

ম্যাচ শেষে রিয়াল কোচ জিদান হতাশার সঙ্গেই বলেন, ‘আমরা আমাদের সেরা খেলাটা উপহার দিতে পারিনি। একটা তিক্ত অভিজ্ঞতা পেছনে ফেলে এলাম। কারণ, আমাদেরকে কঠিন পরিস্থিতিই মোকাবেলা করতে হয়েছে। এছাড়া যখন নিজেরা গোল করার পরপরই একটা হজম করে ফেলতে হয়, তখন কোনোভাবেই ভালো লাগার কথা নয়। আমারও ভালো লাগেনি। প্রথমার্ধেই ভালো খেলেছি আমরা। কিন্তু দুর্ভাগ্য, নেটই খুঁজে পেলাম না।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *