আন্তর্জাতিক

ড্রোনের আঘাতের পর তেলের উৎপাদন কমেছে ৫০ শতাংশ: সৌদি আরব

Advertisements

সৌদি আরবের জাতীয় তেল কোম্পানি আরামকো’র দু’টি স্থাপনায় ইয়েমেনিদের হামলার পর দেশটির তেল ও গ্যাস উৎপাদন অর্ধেকে নেমে এসেছে। তবে তা সাময়িক বলে জানিয়েছেন দেশটির জ্বালানিমন্ত্রী আব্দুল আজিজ বিন সালমান।

তিনি গতরাতে বলেছেন, আরামকো’র স্থাপনায় হামলার কারণে সাময়িকভাবে তেলের উৎপাদন হ্রাস পেয়েছে। তিনি জানান, আবকাইক ও খুরাইস তেল শোধনাগারে হামলার পর তেল ও গ্যাসের উৎপাদন ৫৭ লাখ ব্যারেল কমেছে।

এদিকে, ইয়েমেনের আনসারুল্লাহ আন্দোলনের রাজনৈতিক দপ্তরের সদস্য মোহাম্মাদ আল বাখিতি কাতারের আল-জাজিরা টিভি চ্যানেলকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে বলেছেন, সৌদি আরব ইয়েমেনে আগ্রাসন বন্ধ না করলে প্রতিরোধ সংগ্রামীরা তাদের রাজধানী রিয়াদে পৌঁছে যাবে এবং রিয়াদের নিয়ন্ত্রণ গ্রহণ করবে।

গতকাল (শনিবার) ইয়েমেনের সামরিক বাহিনী ও আনসারুল্লাহ যোদ্ধারা সৌদি আরবের তেল স্থাপনায় ১০টি ড্রোনের সাহায্যে হামলা চালিয়েছে। ইয়েমেন বলেছে, এটি হচ্ছে সৌদি আরবের গভীরে তাদের সবচেয়ে বড় হামলা।

সৌদি আরবে হামলার পর ইয়েমেনের সামরিক বাহিনীর মুখপাত্র ইয়াহিয়া সারি বলেছেন, ‘সৌদি আগ্রাসনের মোকাবেলায় পাল্টা আঘাত করার অধিকার আমাদের রয়েছে। আমরা সৌদি আরবকে সতর্ক করে দিয়ে বলছি আমাদের হামলা অব্যাহত থাকবে এবং নতুন নতুন স্থানে হামলা চালাব।’