Advertisements

শেরপুরের নকলা উপজেলার শেরপুর-ঢাকা মহাসড়কে যাত্রীবাহী বাস ও সিএনজিচালিত অটোরিকশার মুখোমুখি সংর্ঘষে প্রাণ গেল সিএনজিচালকসহ ৩ জনের। রোববার রাত ৭টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত তিনজনের মধ্যে তাৎক্ষণিকভাবে দু’জনের পরিচয় জানা গেছে। তারা হলেন- শেরপুর সদর উপজেলার খুনুয়া বটতলা এলাকার শামসুল হকের ছেলে সিএনজিচালক বিলতাল হোসেন (২২) ও জামালপুরের গেরামারা এলাকার সুরুজ্জামানের ছেলে সিএনজিযাত্রী হাবিবুর রহমান (৫০)। হাবিবুর রহমান থাকতেন নকলার চরমধুয়া গ্রামে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্র জানায়, সিএনজিচালিত অটোরিকশাটি ময়মনসিংহ থেকে যাত্রী নিয়ে নকলার চিথলিয়া এলাকায় পৌঁছালে ঢাকা থেকে আসা বিপরীতমুখী এফজেড লাইন নামের (ঢাকা মেট্টো-ব ১২-০০৫) যাত্রীবাহী একটি বাসের সঙ্গে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে সিএনজিটি দুমড়ে-মুচড়ে যায় ও বাসটি সড়কের পাশে পড়ে যায়। স্থানীয়রা এসে সিএনজির নিচে চাপা পড়ে থাকা চালক ও চার যাত্রীকে উদ্ধার করে নকলা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পাঠান। সেখানে চিকিৎসকরা সিএনজিচালক বিলতালকে মৃত ঘোষণা করেন। গুরুতর আহত ৪ যাত্রীকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজে পাঠানো হলে সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাত ১০টার দিকে হাবিবুর রহমান ও অপর এক যাত্রী মারা যান।

নকলা থানার ওসি মো. আলমগীর শাহ বলেন, আহত অপর দুই যাত্রীর অবস্থাও সংকটাপন্ন বলে চিকিৎসরা জানিয়েছেন। বাসটি আটক করা হয়েছে। বিলতালের লাশ থানায় আনা হয়েছে।

By Abraham

Translate »